মেইন ম্যেনু

চুল বিক্রি করেই প্রতি মাসে কোটি টাকা!

তাঁর ভাণ্ডারে যে অর্থের কমতি নেই, সে কিছু নতুন কথা নয়। স্বয়ং ভগবানই কথা দিয়েছিলেন ভক্তদের, তাঁর মন্দিরে এসে যিনি অর্থ দান করবেন, তিনি চিরতরে মুক্ত হবেন পৃথিবীবাসের যাতনা থেকে। ভগবান ভেঙ্কটেশ্বরকে এভাবে কুবেরের ঋণ শোধ করতে সাহায্য করলে ভক্তরা পাবেন বৈকুণ্ঠ বাসের অধিকার! সেই মতো ভক্তদের নানাবিধ দানে উপচে ওঠে তিরুপতি বালাজি মন্দিরের দানপাত্র। যা মন্দিরের আয় এবং ভগবানের ঋণশোধ- দুইয়ের সহায়ক হয়। তা বলে চুল বিক্রি করে কোটি টাকা আয়?

অসম্ভব কিছু নয়। প্রতি দিন আগত অনেক ভক্তই চুল উৎসর্গ করে থাকেন ভগবানকে। পুরুষ-নারী নির্বিশেষেই মনোবাঞ্ছা পূর্ণ হলে ভগবানকে কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্য এই পন্থা অবলম্বন করেন। ফলে প্রতি দিন এভাবে জমতে জমতে মাসের শেষে বেশ বিপুল পরিমাণেই কর্তিত কেশরাশি জমা হয় তিরুপতি বালাজি মন্দিরে। সেই চুলই যখন নিলামে উঠল, দু’ মাস মিলিয়ে দাম মিলল ১৭.৮২ কোটি।

তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানম জানিয়েছে, গত জুলাই মাসে চুল বিক্রি করে তাদের লাভ হয়েছিল ১১.৮৮ কোটি টাকা। আগস্ট মাসে অবশ্য সেই তুলনায় অনেকটাই কম উপার্জন হয়েছে। যদিও সেই অঙ্কটাও রয়েছে কোটির উপরেই, সাকুল্যে ৫.৯৪ কোটি! স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠবে- এত টাকা নিয়ে কী করতে চলেছে তিরুপতি বালাজি মন্দির?

মন্দির সূত্রে জানানো হয়েছে যে এই আয় যোগ্য খাতেই ব্যয় করা হবে। ১১.২৮ কোটি ব্যয় করে কেনা হবে ৩৯.৩২ লক্ষ লিটার দুধ, যা লাইনে দাঁড়ানো শিশুদের পান করানো হবে। এছাড়া তিরুপতি লাড্ডু, যা তার বিশাল আকারের জন্য বিখ্যাত, ভগবানের সেই নৈবেদ্য তৈরির জন্য ব্যয় করা হবে ২,৬৭৮ কোটি! উৎকৃষ্ট পরিমাণ গোদুগ্ধজাত ঘি কিনতে ব্যয় করা হবে এই টাকা! ভক্ত আর ভগবানের আর্থিক লেনদেনের এভাবেই সাক্ষী থাকছে তিরুমালা তিরুপতি মন্দির! ‘শেখ হাসিনার ফেরার দিন হবে স্মরণীয় শোডাউন’। সংবাদ প্রতিদিন






মন্তব্য চালু নেই