মেইন ম্যেনু

চুয়াডাঙ্গার তিনটি সীমান্তে পৃথক তিনটি পতাকা বৈঠক

শামীম রেজা, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধি : দামুড়হুদার সুলতানপুর, বারাদী ও জীবননগরের মাধবখালিতে পতাকা বৈঠক করেছে বিজিবি ও বিএসএফ। শনিবার সকালে চুয়াডাঙ্গা জেলার পৃথক তিনটি সীমান্তে এ বৈঠকগুলো অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে দুদেশের সীমান্তরক্ষিদের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়ন, অবৈধ পারাপার বন্ধ করা এবং চোরাচালান প্রতিরোধ করা নিয়ে কথা বলেন দুদেশের সীমান্তরক্ষিরা।

চুয়াডাঙ্গা ৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক মোহাম্মদ আমির মজিদ জানান, তিনটি বৈঠকই অনুষ্ঠিত হয় সকাল ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে। জীবননগর উপজেলার মাধবখালি মাঠের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় ৭০ মেইন পিলারের কাছে। এতে ধোপাখালি বিওপি ক্যাম্পের হাবিলদার আব্দুর রশিদ বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন। ওই বৈঠকে বিএসএফের পক্ষে ছিলেন ১১৩ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের মেটেরি ক্যাম্প কমান্ডার এস আই কৃষ্টপার।

দামুড়হুদা উপজেলার বারাদী সীমান্তের ৮২ মেইন পিলারের কাছে বারাদী আমবাগানে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন বারাদী ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার ইসলাম উদ্দিন। বিএসএফের পক্ষে ছিলেন ১১৩ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের গোবিন্দপুর ক্যাম্প কমান্ডার এস আই আরকে বুড়ো।

দামুড়হুদার সুলতানপুর সীমান্তের ঝাঝাডাঙ্গা আমবাগানে বসে তৃতীয় বৈঠকটি। সীমান্তের ৭৮ মেইন পিলারের কাছে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন সুলতানপুর বিওপি কমান্ডার হাবিলদার সিরাজুল ইসলাম। বিএসএফের পক্ষে ছিলেন ১১৩ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের হালদারপাড়া ক্যাম্প কমান্ডার এস আই জগীন্দার কুমার।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ মে চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার নতুনপাড়া সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে নিহত হয় স্কুলছাত্র শিহাব উদ্দিন। এ ঘটনার সাত দিন পর জেলার তিনটি সীমান্তে দুদেশের সীামন্তরক্ষিদের মধ্যে পতাকা বৈঠক বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে সৌহার্দ সম্পর্ক বাড়াবে বলে মনে করেন দুদেশের সীমান্তরক্ষিরা।






মন্তব্য চালু নেই