মেইন ম্যেনু

চোখে সুপারগ্লু লাগিয়ে বিপাকে কেটি

কত বিচিত্র সব ঘটনাই প্রতিদিন ঘটে যাচ্ছে আমাদের চর্তুপাশে। এই ঘটে যাওয়া বিচিত্র ঘটনাগুলোর মধ্যে কিছু ঘটে ভুলের কারণ, আবার কিছু ঘটে নিতান্তই পরম্পরা হিসেবে। কিন্তু প্রত্যাহিক জীবনযাপনের বাইরের ব্যাতিক্রমধর্মী ঘটনাগুলো অন্যান্য ঘটনার তুলনায় আমাদের মনে দাগ কেটে থাকে অনেকদিন। যেমন ধরা যাক যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডাবাসী কেটি গেয়ডসের কথাই। নিজের ব্যাগে রাখা চোখের ড্রপের বদলে ভুল করে অন্য একটি তরল ঢেলে ফেলেছেন চোখে। আর এরপর সেকি নাকানিচুবানি অবস্থা।

কেটি ভুলবশত তার এক চোখে ড্রপের বদলে সুপারগ্লু লাগিয়ে ফেলায় প্রায় এক সপ্তাহের মত তার এক চোখ বন্ধ করে রাখতে হয়েছিল। একটি মেশিনের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় চোখে সামান্য ময়লা ঢুকেছিল কেটির। আর সেই ময়লা থেকে চোখকে বাঁচানোর জন্য পাশে থাকা ভদ্রলোকটিকে কেটি তার ব্যাগ থেকে চোখের ড্রপটি বের করতে বলেন। কিন্তু সেই লোকটি ভুলবশত চোখের ড্রেপটি কেটির হাতে না দিয়ে, দিলেন সুপারগ্লুর টিউব। আর তাতেই যত বিপত্তি।

কেটির ভাষ্য মতে, তিনি যখন পাতামাড়ানোর মেশিনের সামনে দিয়ে হেটে যাচ্ছিল তখন তার চোখে ধূলাবালি উড়ে এসে আটকে যায়। তখন সেখানে থাকা এক লোককে তার ব্যাগ থেকে চোখে দেয়ার ড্রপ আনতে বললে সে ভুল করে তার পরিবর্তে সুপারগ্লু নিয়ে আসে। সুপারগ্লু চোখে যাওয়া মাত্রই তার চোখ জ্বালাপোড়া শুরু করে। কোনো উপায় না দেখে সে ৯১১ নং এ ফোন দেয় এবং তার অবস্থার কথা জানায়। পরে প্রচণ্ড যন্ত্রনা নিয়ে ডাক্তারের কাছে ছুটে গেলে টাকা না দেয়ার কারণে তাকে সেখান থেকে ফিরিয়ে দেয়া হয়।

ভাগ্যক্রমে তার এই সমস্যার কথা একটি স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রচার হলে তারা তাকে সাহায্য করে। কেটি বলেন সে প্রথমে আমার চোখের উপরে লিডোকেইন রাখে এবং আস্তে আস্তে চোখে বাতাস করতে থাকে যতক্ষন না পর্যন্ত আমার চোখের পাতা খোলে। প্রায় একসপ্তাহের মত চোখ বন্ধ করে রাখার পর অবশেষে চোখ খোলেন তিনি। বিশেজ্ঞদের মতে, এই ঘটনায় তার দৃষ্টিশক্তি স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়নি।






মন্তব্য চালু নেই