মেইন ম্যেনু

ছাত্রলীগের সংঘাত নিয়ন্ত্রনে ‘দেয়াল’ প্রস্তুত

সাফাত জামিল শুভ, চবি প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) দুই আবাসিক হলে’র মধ্যে সীমানা দেয়াল তৈরি করেছে কর্তৃপক্ষ।মূলত ছাত্রলীগের বিবদমান দ্বিপক্ষীয় সংঘাত এড়াতেই এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র অনুযায়ী, ক্যাম্পাসের উত্তর অংশে অবস্থিত শাহজালাল ও শাহ আমানত হল দুটিকে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকবার বড় সংঘর্ষ হয়েছে বিগত বছরগুলোতে।এ দুটি আবাসিক হলে’র অবস্থান মুখোমুখি হওয়ায় এবং কোন সীমানা প্রাচীর না থাকায় অল্পসময়েই সংঘর্ষ চরম আকার ধারণ করে। পুলিশ অবস্থান নেওয়ার আগেই পাল্টাপাল্টি হামলায় আহত হয়ে যায় অনেকেই।বিশ্ববিদ্যালয়ের যাবতীয় সংঘর্ষের কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে দুই হলের মধ্যবর্তী এ স্থানটি চিহ্নিত করেছে প্রশাসন।

অনুসন্ধানে জানা যায়, তুচ্ছ ঘটনা অথবা ব্যক্তিগত ক্ষোভ থেকে সৃষ্ট সংঘর্ষগুলোই অনেক সময় দলীয় রূপ নেয়। মারাত্নকভাবে আহত হওয়া থেকে কখনো হত্যাকান্ড পর্যন্তও গড়ায় অনাকাঙ্ক্ষিত এসব সংঘর্ষ।

13115755_1016814811700028_436122618_n

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়ায় ছাত্রলীগ নিয়ন্ত্রিত শাটল ট্রেনে’র বগিভিত্তিক সংগঠন ভিএক্স (ভার্সিটি এক্সপ্রেস) ও সিএফসি (চ্যুজ ফ্রেন্ডজ উইথ কেয়ার)। সে সময় শাহজালাল হলে অবস্থানরত ভিএক্স ও শাহ আমানত হলের সিএফসি কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক গোলাগুলি হয়। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে বুলেটের আঘাতে প্রকাশ্য দিবালোকে নির্মমভাবে নিহত হয় সংস্কৃত বিভাগের শিক্ষার্থী তাপস সরকার, আহত হয় শতাধিক।

বিচ্ছিন্ন এসব সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে অনেক দিন ধরেই কঠোর অবস্থানে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।অন্যতম পদক্ষেপ হিসেবে গত ৫ই মার্চ থেকে শাহজালাল ও শাহ আমানত হলের মধ্যবর্তী সীমানায় ৩০০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৯ ফুট উচ্চতার দেয়াল তৈরীর কাজ শুরু হয়।প্রায় সাড়ে আট লাখ টাকা ব্যায়ে নির্মানকাজ সম্পন্ন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রকৌশল দপ্তর।নবনির্মিত এ ‘দেয়াল’ বিবদমান দুই পক্ষের মুখোমুখি অবস্থান নিয়ন্ত্রণ করতে কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে আশা কর্তৃপক্ষের।






মন্তব্য চালু নেই