মেইন ম্যেনু

ছাত্রীর সঙ্গে ‘ধরা খেলেন’ ওলামালীগ নেতা!

ছাত্রীদের নামাজঘরে এক ছাত্রীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় আটক হয়েছেন মাদরাসা অধ্যক্ষ ও ওলামালীগ নেতা মাওলানা ফজলুল করিম (৬২)। ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও অধ্যক্ষের এক সহকারীর বাড়িতে হামলা চালিয়েছে শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে বগুড়া জেলার সোনাতলা ফাজিল মাদরাসায় এ ঘটনা ঘটে। এতে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে অভিভাবক এলাকাবাসীর মধ্যে। পুলিশ জানিয়েছে, ছাত্রী ধর্ষণের ওই ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
আটক মাওলানা ফজলুল করিম সোনাতলা ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ ও সোনাতলা উপজেলা ওলামালীগের সভাপতি।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানায়, দুপুর একটার দিকে অধ্যক্ষ ফজলুল করিম আলিম ক্লাসের এক ছাত্রীকে মাদরাসা ভবনের দ্বিতীয় তলায় ছাত্রীদের নামাজঘরে ডেকে নেন। সেখানে ওই ছাত্রীর সঙ্গে যৌনকর্মে লিপ্ত হন। অন্য শিক্ষার্থীরা বিষয়টি টের পায়। এরপর দুজনই আপত্তিকর অবস্থায় আটক হন।

এক পর্যায়ে ওই ছাত্রীকে বিয়ে করার অঙ্গীকার করে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন অধ্যক্ষ মাওলানা ফজলুল করিম। কিন্তু একটি মহল পুলিশকে খবর দিলে অধ্যক্ষকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।
এদিকে, মাদরাসার অধ্যক্ষ ও ওলামালীগ সভাপতির বিরুদ্ধে ছাত্রীকে ধর্ষণের খবর ছড়িয়ে পড়ার পর স্থানীয়রা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। অধ্যক্ষের বিচার দাবি করে মাদরাসার শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ জনতা অধ্যক্ষের সহযোগী হিসেবে পরিচিত মাদরাসার অফিস সহকারীর বাড়িতে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। বিক্ষোভ মিছিল শেষে সোনাতলা উপজেলা পরিষদ চত্বরে সমাবেশ করা হয়।

সোনাতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মোত্তালেব বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আটক অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রমতে, মাওলানা ফজলুল করিম একজন চিহ্ণিত রাজাকার। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর তৈরি হওয়া রাজাকারের তালিকায় তার নামও রয়েছে। কিন্তু তিনি ওলামা লীগে যোগ দিয়ে নিজেকে রক্ষার চেষ্টা করেন। পরবর্তীতে সোনাতলা উপজেলা ওলামালীগের সভাপতির দায়িত্বও পান। ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গ সংগঠনের নেতা হওয়ায় দেড় বছর আগে অবসরে গেলেও মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটির রেজুলেশনের বলে মাওলানা ফজলুল করিম অধ্যক্ষের চেয়ারও দখল করেন।
তবে সোনাতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম বুলু নিশ্চিত করেছেন, ফজলুল করিম তাদের দলের কেউ নয়।-বাংলামেইল






মন্তব্য চালু নেই