মেইন ম্যেনু

ছেলেটা কেমন? ৯ পরীক্ষায় ফেল করলে প্রেম নয়

প্রেম মানুষের জীবনে বার বার আসে না। তবে কখন আসে তা বলা যায় না। যেহেতু বার আসে না যখন আসবে তখন ধরে রাখতে পারবেন।? আর তাছাড়া প্রেম অনেক সময় লুকিয়ে থাকে প্রকাশ পায় না। তাই অনেকেই মনে করি মেয়েদের মন বোঝা কষ্ট দায়ক নয়। কিন্তু শুধু মেয়েদের মন নয়, ছেলেদেরও মন বোঝাও বেশ কষ্ট দায়ক। জেনে নিন কোন ১০টি লক্ষণ দেখে বুঝে নেবেন আপনার বয়ফ্রেন্ড পরিনত নাকি একেবারেই ‘ইমম্যাচিওর’।

১। তিনি কি সব দিক বিবেচনা করে কাজ করেন? সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে অন্যদের দিকটাও কি ভাবেন? না হলে নম্বর কম।

২। আপনার মুড অফ থাকলে কেমন আচরণ করেন? আপনাকে ঠিকঠাক বুঝতে পারেন? এই সময়গুলোই কিন্তু বোঝাপড়া তৈরি করে।

৩। উনি কি সব সময় আপনার ঘাড়ে দোষ চাপান? নিজে কোনও ভাবেই দায় নিচ্ছেন না? তবে তো ‘ইমম্যাচিওর’।

৪। উনি কি আপনাকে অযথা রাগানোর চেষ্টা করেন? মাঝে মধ্যে করলে মজা কিন্তু বার বার করলে ঠিক নয়। অপরিনতরা কোনও মহিলার সঙ্গে অযথা ‘ফ্লার্ট’ করে বা অন্যভাবে রাগিয়ে থাকে।

৫। যদি দেখেন আপনার সঙ্গী আপনার সঙ্গে সময় কাটানোর থেকে বন্ধুদের বেশি সময় দিচ্ছেন তবে তিনি ‘ম্যাচিওর’ নন।

৬। আপনার সঙ্গী কি সবেতেই আপানর সাহায্য চান? প্রথম প্রথম এটা অনেকের ভাল লাগে কিন্তু ধীরে ধীরে এটা বিরক্তির কারণ হয়ে ওঠে। এটা চরম ‘ইমম্যাচিওরিটি’।

৭। ঝগড়া হলে কি উনি পুরোপুরি কথা বলা বন্ধ করে দেন? ‘ইমম্যাচিওররা’ এটা করে থাকেন। এতে ঝামেলা তো মেটেই না বরং তা আরও জটিল হয়।

৮। যদি দেখেন উনি সব সময় মজা করেই সময় কাটাতে চাইছেন, কথায় কথায় সেক্সের ছুতো খোঁজেন তবে মোটেই ভাল লক্ষণ নয়।

৯। আপনার বয়ফ্রেন্ডের জীবনে কি কোনও নির্দিষ্ট লক্ষ্য রয়েছে? নিজের পায়ে দাঁড়ানোর বিষয়ে ভাবেন তো! নাকি শুধুই মজায়, আলস্যে সময় কাটান?-এবেলা






মন্তব্য চালু নেই