মেইন ম্যেনু

ছেলেরা বেশি মিথ্যা বলে!

মিথ্যে বলা মহা পাপ। সত্য বলা ভাল গুণ। সত্য-মিথ্যের এ তফাৎটা সবারই জানা। তবে মানে কয়জন? ঠিকই আমরা আমাদের ব্যাক্তি-স্বার্থ হাসিলের জন্য কমবেশি মিথ্যে বলে থাকি। এখন কথা হল কারা বেশি মিথ্যে বলে? ছেলেরা নাকি মেয়েরা? এ প্রশ্নের উত্তর খোঁজা খড়ের গাঁদায় সূচ খোঁজার চেয়েও দুষ্কর বোধহয়! সেই দুষ্কর কাজটিই সম্পন্ন করেছে প্লেইং টু মাচ নামে একটি সংস্থা। ব্রিটেনের দুই হাজার নাগরিকের ওপর জরিপ চালিয়ে সংস্থাটি জানায়, মেয়েদের চেয়ে ছেলেরাই বেশি মিথ্যে বলে!

ডেইলি মেইল এ জরিপ ফলেরভিত্তিতে একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, মেয়েরা কাউকে কষ্ট না দেওয়ার জন্য অনেক সময় সত্য গোপন করে। কিন্তু টাকা বাঁচাতে, বাজি জিততে কিংবা সমস্যা থেকে পরিত্রাণের লক্ষ্যে ছেলেরা মিথ্যে বলে অহরহ।

আরও বলা হয়, মেয়েরা যেখানে সপ্তাহে গড়ে তিনবার মিথ্যের আশ্রয় নেয়, ছেলেরা সেখানে মিথ্যে বলে সপ্তাহে অন্তত চারবার। ছোট ঘটনা ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে বড় করে উপস্থাপনের বিষয়েও মেয়েদের চেয়ে ছেলেরা আগ্রহী বেশি।

ছেলেরা নিজের মানসিক অবস্থা নিয়ে সবচেয়ে বেশি মিথ্যে বলে। এ ছাড়া উপহারের দাম, নিজের অসুস্থতা, চাকরির ইন্টারভিউয়ে কিংবা জীবনবৃত্তান্তে অবলীলায় মিথ্যে তথ্য দেয় ছেলেরা।






মন্তব্য চালু নেই