মেইন ম্যেনু

ছয় মাস পর আবার শেরে বাংলায় ক্রিকেট উৎসব

ব্যাংকে টিকিট বিক্রির ব্যবস্থা নেই। তার বদলে অনলাইনে মিলছে প্রবেশ মূল্য। তাই রোদে পুড়ে আর বৃষ্টিতে ভিজে ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিটের জন্য হাহাকারও নেই। এমনিতে কোন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আগে শেরে বাংলার আশ পাশে কৌতুহলি মানুষের ভীড় লেগেই থাকে। নানা গুঞ্জন ও কথেপকোথনে মুখর থাকে শেরে বাংলার আশপাশ। তবে নিরাপত্তার কড়াকড়ি কিংবা অন্য যে কোন কারণেই হোক, এবার তা চোখে পড়েনি। তাই বলে ভাববেন না বাংলাদেশ আর আফগানিস্তান সিরিজ নিয়ে ক্রিকেট অনুরাগির উৎসাহ আগ্রহ কম।

তবে প্রতিপক্ষ যেহেতু আফগানিস্তান, তাই কৌতুহল ও ভাবাবেগ তুলনামুলক কম। কিন্তু প্রিয় জাতীয় দলকে ঘিরে উৎসাহ, আগ্রহ আর উদ্দীপনাতো আর কমেনি। সেটা আগের জায়গায়ই আছে। বরং প্রত্যাশা বেড়েছে। ক্রিকেট আজ গোটা জাতির আশা, আকাঙ্খা ও ভালোবাসার ও ঐক্যর প্রতীক। লাল সবুজ জার্সির খেলা মানেই বাঙ্গালির বাঁধ ভাঙ্গা উল্লাস আর স্টেডিয়াম ভড়া দর্শকের ‘বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ’ ধ্বনিতে আকাশ বাতাস কেপে ওঠা। তাই ভাবা হচ্ছে আজ রোববার দুপুর গড়ানোর আগেই শেরে বাংলা আবার দর্শক, ভক্ত ও সমর্থকের কলতানে মুখর হয়ে উঠবে।

আসগর স্ট্যানিকজাই, মোহাম্মদ নবী ও শাপুর জাদরানদের নিয়ে উৎসাহ আগ্রহে কমতি থাকতেই পারে। কিন্তু মাশরাফি, তামিম, সৌম্য, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির ও তাসকিনদের ব্যাট ও বলের পারফরমেন্স দেখার উৎসাহ ও আগ্রহটা ঠিক আগের মতই আছে।

মাঝে পাঁচ মাস মাশরাফি বাহিনী আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে। সেই গত মার্চে ভারতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শেষ মাঠে নামা আর ঘরের মাঠে শেষ খেলা ৬ মাস আগে; ফেব্রুয়ারীতে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এশিয়া কাপে। কিন্তু ঘরের মাঠে মাশরাফির দল ওয়ানডে খেলে না সেই গত বছর নভেম্বর থেকে। এক বছর আগে ২০১৫ সালের নভেম্বরে এই শেরে বাংলায় জিম্বাবুয়ের সাথে শেষ তিন ম্যাচ সিরিজে মাঠে নেমেছিল টাইগাররা। তাই ৫০ ওভারের ফরম্যাটে প্রিয় জাতীয় দলের খেলা শেষ মাঠে গিয়ে দেখার সুযোগ মিলেছে ১০ মাস পর।

বলার অপেক্ষা রাখেনা, দীর্ঘ দিন মাঠে বসে প্রিয় জাতীয় দলের খেলা দেখতে না পারা এবং জাতীয় পতাকা হাতে উল্লাসে মেতে ওঠার সুযোগ হয়নি। আফাগানিস্তানের সাথে হঠাৎ ঠিক হওয়া সিরিজ আবার বাঙ্গালিকে ক্রিকেট উৎসবে মেতে ওঠার সুযোগ করে দিয়েছে। তাই আজ রোববার আবার জ্বলে উঠবে হোম অফ ক্রিকেটের ফ্লাড লাইট।

মাঝে কিছুদিন দর্শক ও ক্রিকেট ভক্তর পদচারনা কম থাকলেও এ সিরিজ দিয়েই আবার বেশ কিছু দিনের জন্য প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরে আসছে হোম অফ ক্রিকেটে। এখন থেকে নভেম্বরের শেষ দিন পর্যন্ত জমজমাট থাকবে শেরে বাংলা।

এ সময় আফগানিস্তানের সাথে তিন ম্যাচের সিরিজ ( ২৫, ২৮ সেপ্টেম্বর, ও ১ অক্টোবর) শেষ হবার আগেই চলে আসছে ইংল্যান্ড। ৭ ও ৯ অক্টোবর ইংলিশদের সাথে এ মাঠেই দুই ওয়ানডে।

তারপর বন্দর নগরি চট্টগ্রামের জহুর আহেমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে এবং প্রথম টেষ্ট। আর দ্বিতীয় টেষ্ট আবার শেরে বাংলায়। ইংল্যান্ডের সাথে হোম সিরিজ শেষ হতেই নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে শুরু বিপিএল। আবার টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জোয়ারে ভাসা। আগামী দুই মাস শুধুই ক্রিকেট আর ক্রিকেট। ক্রিকেট অনুরাগিদের ‘পোয়া বারো’।






মন্তব্য চালু নেই