মেইন ম্যেনু

ছয় সপ্তাহের মধ্যে ফিরছেন তাসকিন!

অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন বাংলাদেশের দুই বোলার তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানী।

ইতিমধ্যে তারা দুজন ফিরে আসার লড়াই শুরু করেছেন। বাংলাদেশের বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিকের তত্ত্বাবধানে অনুশীলন করে যাচ্ছেন তারা।

আরাফাত সানীর বোলিং অ্যাকশনে সমস্যা বেশি হলেও তাসকিন আহমেদের সমস্যার পরিমাণ কম। তাই তাসকিনের দ্রুত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে আসার ব্যাপারে আশাবাদী জিম্বাবুইয়ান কোচ হিথ স্ট্রিক।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ দলের বোলিং কোচ বলেন, ‘সামনে আমাদের খুব বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ নেই। তাই আমাদের সময় নিয়ে কোনো তাড়া নেই। তারপরও আমি মনে করি এক মাস কিংবা ছয় সপ্তাহের মধ্যে আমরা তাসকিনকে পুনঃরায় পরীক্ষা করাতে পাঠাতে পারব। তবে তাকে পাঠানোর আগে আমাদেরকে শতভাগ প্রস্তুত হতে হবে। তবে সেটা আমাদের জন্য বড় কোনো সমস্যা হবে না। দ্রুতই তাসকিন তার সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারবে।’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষের ম্যাচে আরাফাত সানী ও তাসকিন আহমেদের বোলিং অ্যাকশনের বিরুদ্ধে রিপোর্ট করেন আম্পায়াররা। তারপর তারা দুজন চেন্নাইতে বোলিং অ্যাকশন পরীক্ষা দেন। এরপর অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের জন্য তাদের দুজনকেই নিষিদ্ধ করে আইসিসি। তাসকিনের তিনটি ডেলিভারি ১৫ ডিগ্রির বেশি বেঁকে যায়। হিথ স্ট্রিক মনে করেন এই সমস্যা তাসকিন দ্রুতই কাটিয়ে উঠতে পারবে।

তাসকিনের বোলিং অ্যাকশনের বিষয়ে কোচ বলেন, ‘আমি বাংলাদেশ দলের সঙ্গে কাজ শুরু করার পর থেকে তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন খুব বেশি পরিবর্তিত হয়নি। তার বোলিং অ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ করার কোনো অবকাশ আমাদের ছিল না। কিন্তু যখন আমি তার বোলিং অ্যাকশনের বিষয়ে রিপোর্ট করা হয়েছে শুনতে পাই, তখন খুব বিস্মিত হয়েছি। তার নয়টি বাউন্সারের তিনটি মাত্রা অতিক্রম করেছে। তার দ্রুতগতির বাউন্সারগুলো মাত্রার মধ্যেই ছিল। তবে তার ধীরগতির বাউন্সারগুলোর বিষয়েই সন্দেহ পোষণ করা হয়েছে। তার শারীরিক ক্লান্তির কারণে সমস্যা হয়ে থাকতে পারে। তবে তার সমস্যার সমাধান করাটা আমাদের জন্য কঠিন কিছু হবে না। তাকে দ্রুতই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পাওয়ার ক্ষেত্রে আমি আত্মবিশ্বাসী।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হলেও ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে বাঁধা নেই তাসকিন ও আরাফাত সানীর।






মন্তব্য চালু নেই