মেইন ম্যেনু

“জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, নৈরাজ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে”

ফজলে আলম, ভোলা প্রতিনিধি : জঙ্গীবাদ,সন্ত্রাস, গুপ্ত হত্যা ও নৈরাজ্যে বন্ধের প্রতিবাদে ভোলায় বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে শহরের বাংলা স্কুল মোঠে জেলা আওয়ামী লীগ’র আয়োজনে এ কর্মসূচী পালন করা হয়।

ভোলায় জঙ্গি ও সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশ ও বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন গুলাশানে এবং শোলাকিয়ার ঈদ জামাতে হামলা করে জঙ্গিরা, এতে আমরা মর্মাহত। শেখ হাসিনার ইমেজকে নষ্ট, উন্নয়ন ধারা ব্যাহত ও অর্থনীতির ঊর্ধ্বগতি ধ্বংস করতেই দেশে পরিকল্পিতভাবে জঙ্গি হামলা করছে একটি গোষ্ঠী। এ জঙ্গি হামলার পেছনে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র রয়েছে।

প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃতে এ দেশ থেকে জঙ্গি ও সন্ত্রাস নিমূর্ল করতে হবে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সকলকে ঐক্যের পথে আসতে হবে এবং তার হাতকে শক্তিশালী করতে ও কাধেকাধ মিলিয়ে শ্রমিক লীগকে আরো সু-সংগঠিত হতে হবে এবং জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, নৈরাজ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে।

বাংলাদেশ একটি ধর্ম-সহনীয় অসাম্প্রদায়িকা দেশ। যারা দেশের অগ্রযাত্রাকে বাধাঁগ্রস্থ করছে তারা দেশ, জাতি ও রাষ্ট্রের শত্রু। এদের নিশ্চিহ্ন করতে হবে। জঙ্গি কর্মকান্ডের সাথে যারা জড়িত ও তাদের মদদদাতাদের শাস্তি আওতায় এনে মূলোৎপাটন করতে হবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব।

সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্জ মোঃ ইউনুছ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক এনামুল হক আরজু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম গোলদার ভোলা জেলা আওয়ালীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, ভোলা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো: মোশারেফ হোসেন, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ মোঃ শাহে আলম, ভোলা সদর পোর আঃলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী নেওয়াজ পলাশ, সহ জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে বক্তরা বলেন, ভোলার প্রতিটি ইউনিয়ন,প্রতিটি পৌর ওয়ার্ডে সন্ত্রাস বিরোধী কমিটি করে জনগনকে সচেতন করে জঙ্গীবাদ প্রতিহত করা হবে। এ সময় সকলকে জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানোর জন্য আহবান জানানো হয়। পরে ভোলা শহরে বিশাল এক জঙ্গী বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলে জেলা আওয়ামী লীগের সদর উপজেলা,পৌর,ইউনিয়ন,ওয়ার্ড পর্যায়ে বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন বিক্ষোভ মিছিলে অংশ গ্রহন করে। মিছিল পুরো শহর প্রদক্ষিন করে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই