মেইন ম্যেনু

জঙ্গি কার্যক্রম: পাকিস্তানি সেই কূটনীতিককে প্রত্যাহার

জঙ্গি কার্যক্রমের অভিযোগে পাকিস্তান হাইকমিশনের সেকেন্ড সেক্রেটারি ফারিনা আরশাদকে বাংলাদেশ থেকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে।

ঢাকায় পাকিস্তান দূতাবাসের ‘সেকেন্ড সেক্রেটারি’ (রাজনৈতিক) পদমর্যাদার এই কর্মকর্তা বাংলাদেশে বসে এই দেশের বিরুদ্ধে ভয়ঙ্কর সব কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছেন এমন অভিযোগ ওঠে। সম্প্রতি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের হাতে চার জঙ্গি গ্রেপ্তারের পর তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে নড়েচড়ে বসেছে সরকারের ঊর্ধ্বতন মহল। এরইমধ্যে ফারিনা আরশাদের ভয়ঙ্কর কর্মকাণ্ডসহ নানা বিষয়ে ঢাকা মহানগর হাকিম আবদুল্লাহ আল মাসুদের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন গ্রেপ্তার হওয়া ইদ্রিস শেখ ও মো. মকবুল শরীফ। ইদ্রিসের জবানিতে উঠে এসেছে ফারিনা আরশাদ সম্পর্কে পিলে চমকানো চাঞ্চল্যকর তথ্য। গত ২৮ নভেম্বর রাজধানীর উত্তরা ও খিলগাঁও থেকে জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) সদস্য ইদ্রিস শেখ, মো. মকবুল শরীফ, মো. সালাম ও মো. মোস্তফা জামানকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। এরমধ্যে ইদ্রিস শেখ ও মকবুল পাকিস্তানের পাসপোর্টধারী।

সরকারি সূত্রগুলো বলছে, শুধু সরকারবিরোধী ভয়ঙ্কর জঙ্গি তৎপরতাই নয়, বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ মুদ্রাবাজার ধ্বংস করে দেয়ার ষড়যন্ত্র করছিলেন এই সুন্দরী কূটনীতিক। এসব ঘটনা প্রমাণিত হওয়ার পর তাকে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।






মন্তব্য চালু নেই