মেইন ম্যেনু

গুলশানে হামলা: জঙ্গি খায়রুলের বাড়ি বগুড়ায়, বাবা-মা আটক

গুলশানের হলি আর্টিসান রেস্টুরেন্টে হত্যাযজ্ঞে অংশ নেয়া সন্ত্রাসীদের একজন বগুড়ার খায়রুল ইসলাম। পুলিশের দেয়া তথ্য মতে, শুক্রবার রাতে খায়রুল হলি আর্টিসান রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসী হামলায় নেতৃত্ব দেন। গত কয়েকমাসে উত্তরবঙ্গে অন্তত তিন হত্যায় খায়রুলের নাম উঠে এসেছে, তাতে পুলিশের ধারণা এ সেই যুবক যাকে খোঁজা হচ্ছিল।

খায়রুল ইসলাম বগুড়া জেলার শাজাহানপুর উপজেলার চোপনিগর ইউনিয়নের বৃ-কুষ্টিয়া গ্রামের দিনমজুর আবু হোসেনের ছেলে। দুই মেয়ে ও এক ছেলের মধ্যে খায়রুল বড়।

স্থানীয়রা বলছেন, খায়রুল বৃ-কুষ্টিয়া দারুল হাদিস সালাদিয়া কাওমি মাদরাসায় পড়াশুনা শুরু করে। পরে বিহিগ্রাম ডিইউ সেন্ট্রাল ফাজিল মাদরাসা থেকে দাখিল পাস করে।

চোপিনগর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শাহজাহান আলী জানান, প্রথমে গণমাধ্যমে ছবি দেখেই গ্রামে জানাজানি হয়ে যায়। গণমাধ্যমে ছবি দেখে বাবা-মা ও প্রতিবেশীরা খায়রুলকে চিনতে পারে।

রোববার ( ৩ জুলাই) সন্ধ্যায় গোয়েন্দা পুলিশ বৃ-কুষ্টিয়া গ্রামে খায়রুলের ছবি নিয়ে বাড়িতে আসে। প্রথমে তার বাবা-মা ছবিটি দেখে চিনতে পারছেন না বলে জানান। পরে পুলিশ কর্মকর্তারা খায়রুলের ছবি দেখতে চাইলে বাবা-মা একটি ছবি বের করে দেন। তাদের দেয়া ছবির সঙ্গে পুলিশের কাছে থাকা ছবি মিলে যায়। পরে পুলিশ খায়রুলের মা-বাবাকে আটক করে নিয়ে যায়।

খায়রুলের মা পেয়ারা বেগম এ সময় পুলিশকে জানায়, গত এক বছর ধরে খায়রুল বাড়ি থেকে নিখোঁজ ছিল। স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে হারানো বিজ্ঞপ্তি দেয়ার জন্য আট-নয় মাস আগে গিয়েছিলেন বাবা-মা। কিন্তু থানায় জিডি করতে হবে বলে আর বিজ্ঞপ্তি দেননি।

তবে বগুড়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুল ইসলাম নিহত জঙ্গি খায়রুলের বাবা-মাকে আটকের বিষয়টি জানেন না বলে জানান।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার ( ১ জুলাই) রাত পৌনে নয়টার দিকে গুলশানের হলি আর্টিসান বেকারিতে দেশি-বিদেশি ২০ জনকে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা।






মন্তব্য চালু নেই