মেইন ম্যেনু

জঙ্গি দমনে সাফল্য জাতিসংঘে তুলে ধরবেন প্রধানমন্ত্রী

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে জঙ্গি দমনে সরকারের সাফল্য তুলে ধরবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান জাতিসংঘের বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন। আগামী ২১ সেপ্টেম্বর এই ভাষণ দেয়ার কথা আছে প্রধানমন্ত্রীর।

জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে বুধবার ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী। যুক্তরাজ্য ও কানাডা হয়ে তিনি আগামী ১৮ থেকে ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে যোগ দেবেন।

মাসুদ বিন মোমেন বলেন, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের এবারের অধিবেশনটির অনেক গুরুত্ব রয়েছে। শরণার্থী সংকট ও অভিবাসন সমস্যা এবারের অধিবেশনে অধিক গুরুত্ব পাবে। মধ্যপ্রাচ্যে আইএসসহ বিশ্বব্যাপী সহিংস জঙ্গি তৎপরতার উত্থান এবং প্যারিস, ব্রাসেলস, ইস্তান্বু^ুল, বাগদাদ, মদিনা, জাভা, পুচং এমনকি ঢাকাসহ পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি হামলার কারণে বিশ্বজুড়ে তৈরি হয়েছে উদ্বেগ। এই সমস্যার স্থায়ী সমাধানে জাতিসংঘের আওতায় আরও কার্যকর প্রয়াস গ্রহণের বিষয়ে বিশ্ব নেতাদের বক্তব্য থাকবে।

গত ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজানের হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জনকে হত্যার ঘটনায় আলোড়ন উঠে গোটা বিশ্বেই। এরপর ৭ জুলাই কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় হামলা আতঙ্কিত করে গোটা বাংলাদেশকেই। তবে এরপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধারাবাহিক অভিযানে বাংলাদেশে জঙ্গি তৎপরতা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে নিহত হয়েছেন বাংলাদেশে সাম্প্রতিক জঙ্গি তৎপরতায় মূল হোতা হিসেবে চিহ্নিত তামিম চৌধুরীসহ বেশ কয়েকজন সন্দেহভাজন শীর্ষ জঙ্গি নেতা। নিহত হয়েছেন জঙ্গিদের প্রশিক্ষক হিসেবে চিহ্নিত সাবেক সেনা কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলামও।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাধিকবার বলেছেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নিয়ে সরকার শূন্য সহনশীলতার নীতিতে রয়েছে। জঙ্গিবিরোধী অভিযানের পাশাপাশি জনগণের মধ্যে সচেতনতা তৈরিতেও নানা কর্মসূচি চলছে বাংলাদেশে। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ঢাকা সফরে এসে সরকারের জঙ্গিবিরোধী অভিযানের প্রশংসা করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নানা সময় তার দেয়া বক্তব্যে জঙ্গিবাদকে বৈশ্বিক সমস্যা অভিহিত করে বিশ্ব নেতাদেরকে এক হয়ে লড়ার আহ্বান জানিয়েছিন। এই আহ্বান এবার তিনি জাতিসংঘেও তুলে ধরতে যাচ্ছেন।

জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি জানান, নিউ ইয়র্ক সফরে ২১ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংবর্ধনা সভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংবর্ধনা সভাটি অনুষ্ঠিত হবে ম্যানহাটনের গ্যান্ড হায়ত হোটেলের বল রুমে। এছাড়া ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জাতিসংঘের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অধিবেশে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। ২০ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমন্ত্রণে লিডার্স সামিট অন রিফিউজি-তেও যোগ দেবেন শেখ হাসিনা।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুষ্ঠানিক বৈঠক হবে কি না তা এখনো নিশ্চিত নয়।






মন্তব্য চালু নেই