মেইন ম্যেনু

জনপ্রিয় হতে চলেছে পোকার তৈরী খাবার! (দেখুন ভিডিওতে)

শাক-সবজি কিংবা ফলমূল দিয়ে বানানো সালাদ খেতে আমরা অনেকেই অভ্যস্ত হলেও পোকার সালাদ খেতে আগ্রহী মানুষ পাওয়া ভার। কিন্তু এটি যদি আকর্ষণীয়ভাবে উপস্থাপন ও সুস্বাদু করে তৈরি করা যায় তাহলে তার যে সমঝদার পাওয়া যাবে একথা প্রমাণ করেছেন অস্ট্রেলিয়ান দুই উদ্যোক্তা। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে এএফপি।

অস্ট্রেলিয়ান উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন এ পোকার খাবার বিশ্বকে বাঁচাতে পারে। আর এ কারণেই তারা পোকার সালাদ জনপ্রিয় করতে কাজ করছেন। ক্যাথরিনা আনগার ও জুলিয়া কেইসিংগারের বয়স ২৫ ও ২৮ বছর। তারা বাড়িতেই বিশেষ প্রজাতির লার্ভার বংশবৃদ্ধির উপায় উন্নয়নের কাজ করছেন।

এ কাজে তারা একটি বিশেষ যন্ত্র বানিয়েছেন, যার প্রকোষ্টেই উৎপাদন করা যায় পোকা। আর এটি আমাদের প্রোটিন চাহিদা মেটাতে খুবই কার্যকর বলে মনে করছেন তারা। বর্তমানে যে যন্ত্রটি তারা ব্যবহার করছেন তা দিয়ে সপ্তাহে ২০০ থেকে ৫০০ গ্রাম পর্যন্ত খাওয়ার উপযোগী পোকা উৎপাদন সম্ভব।

এ বিষয়ে একজন উদ্যোক্তা বলেন, ‘আপনি তাদের ফ্রিজে রাখতে পারবেন এবং অন্য মাংসগুলোর মতো করেই রান্না করে খেতে পারবেন। আপনি এগুলো রান্না ছাড়াও রোস্ট করে বার্গার, পেটিস কিংবা পাস্তাতে খেতে পারবেন।’ যে যন্ত্রটিতে এ পোকাগুলো উৎপাদন করা হয় তাতে বেশ কয়েকটি প্রকোষ্ট রয়েছে।

সেখানে পোকাগুলোকে তাদের বসবাসের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করা হয় এবং খাবার দেওয়া হয়। প্রথমে এগুলো যন্ত্রের ওপরের স্তরে থাকে। এরপর এগুলো দ্রুত বড় হয় এবং নিচের স্তরে নামানো হয়। সবশেষে এগুলো খাওয়ার উপযোগী হয়ে ওঠে। সে সময় এগুলোর আকার এক ইঞ্চির মতো হয়। এ বিষয়ে ক্যাথরিনা আনগার বলেন, ‘আমাদের টিম এগুলো প্রায় প্রতিদিনই খায়।’

এগুলো গ্রিক সালাদ হিসেবে খুবই উপাদেয় বলে জানান ক্যাথরিনা। তিনি ও তার সঙ্গী উদ্যোক্তা নানা ধরনের পোকার খাবার রান্না করে মানুষকে খাওয়াচ্ছেন। তাদের আশা এতে পোকার খাবার জনপ্রিয় করা সম্ভব হবে। বিশ্বের বহু দেশেই পোকামাকড় খাওয়া হয়।

বিশ্বের প্রায় দুই বিলিয়ন মানুষ তাদের ঐতিহ্যবাহী খাবারে কোনো না কোনোভাবে পোকামাকড় খেয়ে থাকে বলে জানা গেছে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) তথ্য থেকে। এ তালিকায় প্রায় ১,৯০০ ধরনের পোকা রয়েছে। ক্যাথরিনা বলেন, ‘গরুর মাংসের সঙ্গে তুলনা করলে দেখা যাবে পোকা উৎপাদনে সে তুলনায় মাত্র ১০ শতাংশ জায়গার প্রয়োজন হয়।

এছাড়া তাদের গরুর তুলনায় এক চতুর্থাংশ খাবার দিলেই চলে।’ তবে মানুষ এখনও পোকামাকড়কে খাবার হিসেবে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হয়নি। এ কারণে বিষয়টি প্রচারণায় ব্যাপক জোর দিচ্ছেন উদ্যোক্তারা। তারা জানান, পৃথিবীকে রক্ষা করার জন্য এখনই পোকামাকড় খাওয়া শুরু করা উচিত। এটি যথেষ্ট সুস্বাদুও বটে। পোকা উৎপাদনের এ যন্ত্রটি তারা ৪৯৯ ডলারে বিক্রি করছেন। এ যন্ত্রটি বর্তমানে বেশ ভালোই বিক্রি হচ্ছে। আর যন্ত্রটির আরও প্রসারের ব্যাপারে তারা আশাবাদী।






মন্তব্য চালু নেই