মেইন ম্যেনু

জন্মদান ক্ষমতা কমছে অধিক ওষুধ সেবনে

আজকাল উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী সন্তান জন্মদান ও বুকের দুধ খাওয়ানোর ক্ষমতা হারাচ্ছেন। এই সমস্যার পেছনে ব্রিটেনের ডাক্তাররা দায়ি করছেন অতিরিক্ত ওষুধ সেবন ও অপারেশনের মাধ্যমে সন্তান প্রসবকে।

ব্রিটেনের গাইনি বিশেষজ্ঞ ড. মিশেল ওডেন্ট বলেন- নারীরা সামান্য সমস্যাতেও ওষুধের ওপর অতিরিক্ত নির্ভরশীল হয়ে পড়ায় তাদের সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা কমে আসছে। এই অভ্যাসে নারীরা সন্তান জন্মদানের জন্য প্রয়োজনীয় হরমোনের ঘাটতিতেও পড়ছেন। আর তাই ডাক্তাররা তাদেরকে কৃত্রিমভাবে হরমোন উৎপাদনে ওষুধ সেবনের পরামর্শ দিয়ে আসছেন।

প্রাকৃতিকভাবে হরমোন উৎপাদনে ঘাটতির ফলে বুকের দুধ উৎপাদনে ঘাটতি দেখা দেয়। গবেষণায় দেখা গেছে নারীরা বর্তমানে অনেক বেশি সময় ধরে কর্মক্ষেত্রে ব্যস্ত থাকেন। ২০০২ থেকে ২০০৮ সালের মধ্যে সন্তান জন্ম দেওয়া মায়েরা ১৯৫০ এর দশকের শেষদিকের তুলনায় গড়ে প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই ঘণ্টা বেশি কাজ করছেন।

ড. রোডেন্টের লেখা ‘ডু উই নিড মি ওয়াইভস? বইয়ে বলেন, এই গবেষণায় দেখা গেছে যে, সন্তান জন্মদানে সক্ষম নারীদের সংখ্যা কমছে। এর প্রধান একটি কারণ, মায়েদের দেহে অক্সিটোকিন হরমোনে অভাব। এই হরমোনটি কর্মক্ষমতা বাড়ানো ও সন্তানের জন্য বুকের দুধ উৎপাদনে সহায়ক। এর আগে অনেকে দাবি করেছেন এই হরমোনের প্রভাবেই সন্তানের সঙ্গে মায়ের ভালোবাসার বন্ধন আরো দৃঢ় হয়। কিন্তু কৃত্রিমভাবে উৎপাদিত হরমোনের উপর নির্ভরশীলতার কারণে নারীরা প্রাকৃতিকভাবে নিজেদের শরীরে হরমোন উৎপাদনের ক্ষমতা হারাচ্ছেন। এতে একসময় পুরো মানবজাতির সন্তান উৎপাদনের সক্ষমতাই ঝুঁকির মুখে পড়তে পারে।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই