মেইন ম্যেনু

জবিতে নারী সাংবাদিক লাঞ্ছিত, চার শিক্ষার্থী বহিষ্কার

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) এক নারী সাংবাদিক লাঞ্ছিত হয়েছেন। এ ঘটনায় দুই ছাত্র এবং দুই ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। সোমবার জবি প্রক্টর ড. নূর মোহাম্মাদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা হল- শিতল, আতিকুর রহমান প্লাবন, সাদিয়া। অন্য একজনের নাম জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পরিবহনের বাসে বসা কেন্দ্র করে একটি রেডিওর সাংবাদিক ও জবির মিউজিক বিভাগের ১১তম ব্যাচের এক ছাত্রীর সঙ্গে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ৮ম ব্যাচের শিক্ষার্থী শিতলের কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার জের ধরে সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ওই সাংবাদিককে ডেকে নিয়ে যায় শিতল।

এ সময় এক পর্যায়ে ওই সাংবাদিকের ওড়না ছিনিয়ে নেয় শিতলের বন্ধু আনিসুর রহমান প্লাবন। এছাড়া সাদিয়া নামে শিতলের আরেক বন্ধু মারধর করে। পরে ওই সাংবাদিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরকে জানালে প্রক্টর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

লাঞ্ছিত ওই সাংবাদিক বলেন, “শিতলের নির্দেশে প্লাবন তার ওড়না নিয়ে নেয়, ফেরত দেয়নি। এছাড়া মুখে এবং মাথায় চড় থাপ্পড় দিয়েছেন সাদিয়া ও তার আরেক বন্ধু।”

এ বিষয়ে জবি প্রক্টর ড. নূর মোহাম্মাদ বলেন, “ওই সাংবাদিককে মারধর করার কথা স্বীকার করেছে সাদিয়া এবং প্লাবন। তাদের প্রাথমিক স্বীকারোক্তি নিয়ে চারজনকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। তারা সবাই ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ৮ম ব্যাচের শিক্ষার্থী।”






মন্তব্য চালু নেই