মেইন ম্যেনু

জাতিসংঘের সাবেক সভাপতির বিরুদ্ধে ঘুষের অভিযোগ

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সাবেক সভাপতি জন অ্যশের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ এনেছে যুক্তরাষ্ট্র। তিনি ২০১৩ ও ২০১৪ সালে সাধারণ পরিষদের সভাপতি হিসবে দায়িত্ব পালন করার সময়ে এসব ঘুষ কেলেঙ্কারীর ঘটনা ঘটিয়েছিলেন বলে জানিয়েছে রয়টার্স। এ অভিযোগের ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ মহাসচিক বান কি মুন।

জাতিসংঘের এই সাবেক সভাপতি এর আগে অ্যন্টিগুয়া ও ম্যাকাউতে মার্কিন রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

মঙ্গলবার নিউইউয়র্কের এক কেন্দ্রীয় আদলত জন অ্যাশ এবং ম্যাকাউয়ের এক রিয়েল স্টেট ব্যবসায়ীসহ মোট ছয় জনের বিরুদ্ধে চীনা ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ১৩ লাখ মার্কিন ডলার ঘুষ নেয়ার অভিযোগ দায়ের করেছে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার অ্যাশকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। এই অভিযোগের জের ধরে এর আগে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল চীনা ব্যবসায়ী নগ লাপ সেং’কে।

এদের আটক করার করার খবর জানিয়ে মার্কিন অ্যাটর্নি প্রিট বাহারারা বলেছেন, তদন্ত করার পর তাদের বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ আনা হতে পারে। অ্যাশ ওই অর্থ তিনি নিয়েছিলেন চীনা রিয়েল স্টেট কোম্পানি এনজি ল্যাপ সেং-কে সরকারি কাজ ‘পাইয়ে দেওয়ার’ মাধ্যমে। জন অ্যাশ ‘জাতিসংঘের নাম ভাঙিয়ে লাভের ব্যবসা’ খুলে বসেছিলেন বলেও মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।

গত ১৯ সেপ্টেম্বর ৬৪ বছরের চীনা ব্যবসায়ী নগ এবং তার সহযোগী জে উইনকে(২৯) আটক করার পর এই অর্থ আত্মসাৎয়ের বিষয়টি প্রকাশিত হয়। ওই চীনা ব্যবসায়ী তার দেশ থেকে ২০১৩-১৫ সালের মধ্যে ৪৫ লাখ ডলার নগদ অর্থ যুক্তরাষ্ট্রে এনেছিলেন। এসব অর্থ তিনি, জুয়া, চিত্রশিল্প বা পুরনো মূল্যবাদন সামগ্রি এবং রিয়েল স্টেট ব্যবসায় ব্যবহার করেছিলেন। মার্কিন প্রসিকিউটররা তার অর্থ সংগ্রহের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

অভিযোগে আরো বলা হয়েছে, চীনা ব্যবসায়ী নগ সবমিলিয়ে অ্যাশকে পাঁচ লাখের বেশি মার্কিন ডলার ঘুষ দিয়েছিলেন। তিনি প্রতি মাসে অ্যাশকে ২০ হাজার ডলার করে দিতেন বলে প্রসিকিউটরদের জানিয়েছেন ডোমেরিকা প্রজাতন্ত্রের অন্য এক জাতিসংঘ দূত।






মন্তব্য চালু নেই