মেইন ম্যেনু

জানলে অবাক হবেন, বিশ্বের বড় দেশগুলোর নাস্তার তালিকায় এসব কি?

দিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খাবার ব্রেকফাস্ট। সারাদিনের ম্যাক্সিমাম এনার্জি শরীর পায় ব্রেকফাস্ট থেকেই। তাই যতই ডায়েট কনট্রোল করুন না কেন, ব্রেকফাস্ট না করার জন্য কখনো বারণ করেন ডাক্তাররা। দেখে নিই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কোথায় কেমন ব্রেকফাস্টের চল।

চীন : চীনের মতো বিশাল দেশে বিভিন্ন অঞ্চলে ব্রেকফাস্টও বদলে যায়। তবে চীনের ট্র্যাডিশনার ব্রেকফাস্ট হল ইউতিয়াও। যা আদতে ভাজা ময়দার স্টিক ও গরম সয় মিল্কের কম্বো। চীনের বেশিরভাগ মানুষই এই ব্রেকফাস্ট পছন্দ করেন।

অস্ট্রেলিয়া : শস্যদানা ও সবজি দিয়ে তৈরি ভেগেমাইট নামে এক ধরনের ফুড পেস্ট অস্ট্রেলিয়ানরা এতটাই পছন্দ করে, পাউরুটিতে মাখিয়ে প্রতিদিনই ব্রেকফাস্টে খায়। ব্রেকফাস্টে নানা ধরনের ফলও খেয়ে থাকে অজিরা।

ব্রাজিল : প্লেট ভর্তি হ্যাম, চিজ ও ব্রেড। সঙ্গে কড়া কফি বা দুধ। ব্যস ব্রাজিলিয়ানদের ব্রেকফাস্ট রেডি।

ইংল্যান্ড : ট্র্যাডিশনাল ইংলিশ ব্রেকফাস্ট মানেই থাকবে ডিম, সসেজ, বেকন, বিনস, মাশরুম এবং রান্না করা টমেটো।

ফ্রান্স : মাখন লাগানো পাউরুটি কফিতেভিজিয়ে খেতে বড়ই ভালোবাসে ফরাসীরা।

জার্মানি : ব্রেকফাস্টে অনেক কিছু খেয়ে থাকেন হিটলারের দেশের লোকজন। টাটকা পাউরুটি, ঠাণ্ডা মাংস, চিজ, মাখন ও জ্যাম তাদের চাই-ই চাই।

ইতালি : জ্যাম বা চকোলেটের পুর ভরা মিষ্টি পাউরুটির সঙ্গে ক্যাপুচিনো দিয়েই দিন শুরু হয় অধিকাংশ ইতালিবাসীর।

জাপান : ব্রেকফাস্টেও ভাত খেয়ে থাকেন জাপানিরা। সঙ্গে স্যুপ, সবজি, মাছ, ওমলেট – সবই চাই।

রাশিয়া : চিজ ও অন্যান্য সবজির পুর ভরা বিস্কুটের সাইজের এক ধরনের কেক ব্রেকফাস্টে খেতে খুবই পছন্দ করেন রাশিয়ানরা।

আমেরিকা : আমেরিকার মতো বিশাল দেশে বিভিন্ন অঞ্চলে বদলে যায় ব্রেকফাস্ট। তবে ডিম, আলু, সসেজ মোটামুটি সব মার্কিনের ব্রেকফাস্ট প্লেটে থাকে।

ভারত : বিভিন্ন রাজ্যে পাল্টে যায় ব্রেকফাস্ট। তবে সকালের নাস্তার তালিকায় রুটি, লুচি, পরোটা, ইডলি বা ধোসা মোটামুটি থাকে।-টাইমস অফ ইন্ডিয়া






মন্তব্য চালু নেই