মেইন ম্যেনু

জানুয়ারিতে চার দেশে যান চলাচল শুরু

আগামী জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপালের (বিবিআইএন) মধ্যে যাত্রী, কার্গোসহ সবধরনের যান চলাচল আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। এরই মধ্যে সব প্রক্রিয়া শেষ করা হবে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের নিজ সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, চার দেশের মধ্যকার মোটর ভেহিক্যালস চুক্তি (এমভিএ) অনুযায়ী জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপালের মধ্যে যাত্রী, কার্গোসহ সবধরনের যান চলাচল শুরু হবে। এজন্য আমরা প্রস্তুত। রাস্তাঘাট দ্রুত মেরামত করা হচ্ছে। আশা করছি, জানুয়ারির আগেই বাকী প্রক্রিয়া শেষ করতে পারব।

তিনি আরো বলেন, চার দেশের (বিবিআইএন) এই চুক্তি (এমভিএ) আরো আগে বাস্তবায়ন করা যেত। কিন্তু নেপালের কারণে একটু সময় লাগছে। দেশটিতে নতুন প্রধানমন্ত্রী এসেছে। আশা করি, দেশটির সংসদে দ্রুত এই চুক্তি পাস হবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, চার দেশের মধ্যকার এই চুক্তি বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে ২৯ অক্টোবর থেকে কিংবা এ মাসের সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশ, ভারত ও ভুটানের মধ্যে পরীক্ষামূলক যাত্রী পরিবহণ চলাচল শুরু হবে। যাত্রী পরিবহণ রুটগুলো হল চট্টগ্রাম-ঢাকা-হাটিকুমরুল-রংপুর-বুড়িমারি, চেংড়াবান্ধা (ভারত)-শিলিগুড়ি (ভারত)-জয়গাঁও (ভারত), ফুয়েন্টশোলিং (ভুটান)-থিম্পু (ভুটান) রুটে অথবা ভুটানের থিম্পু হতে থিম্পু (ভুটান)-ফুয়েন্টশোলিং(ভুটান), জয়গাঁও(ভারত)-শিলিগুড়ি(ভারত)-চেংড়াবান্ধা(ভারত), বুড়িমারি-রংপুর-হাটিকুমরুল-ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে এই পরীক্ষামূলক যাত্রী পরিবহণ করা হবে।

মন্ত্রী বলেন, পরীক্ষামূলকভাবে যাত্রী পরিবহণের সঙ্গে সঙ্গে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে কার্গো ভেহিক্যালস ট্রায়াল রান অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি জানান, কার্গো ভেহিক্যালস ট্রায়াল রানের সম্ভাব্য রুটে একজন অপারেটরের নাম এডিবির কাছে পাঠাতে হবে। এজন্য মংলা পোর্ট খুলনা-হাটিকুমরুল-বগুড়া-রংপুর-বুড়িমারি, চেংরাবান্ধা (ভারত) জয়গন (ভারত), Phuentsholing (Bhutan)-Thimphu (Bhutan) রুটে Trial Cargo Run পরিচালনার জন্য এফবিসিসিআই প্রস্তাবিত মেসার্স নজরুল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সি, তেজগাঁও, ঢাকা-কে অপারেটর হিসেবে মনোনিত করে এডিবি বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে ভারতের উড়িষ্যা প্রদেশের ভুবনেশ্বর থেকে শুরু হয়ে বিহারের রাঁচি, পাটনা, নেপালের কাঠমান্ডু, বিরাটনগর, ভুটানের ফুয়েন্টসোলিং, থিম্পু, ভুমথাং, মঙ্গার, ভারতের আসামের গৌহাটি, শিলচর, ত্রিপুরার আগরতলা পর্যন্ত ফ্রেন্ডশিপ মটরর‌্যালি হবে। একইভাবে ২৮ নভেম্বর থেকে আখাউড়া অথবা ফেনীর বিলোনিয়া সীমান্ত হয়ে র‌্যালিটি বাংলাদেশে প্রবেশ করবে। র‌্যালিটি চট্টগ্রাম হয়ে ঢাকায় আসবে। ২৯ নভেম্বর ঢাকায় একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। ৩০ নভেম্বর সকালে ঢাকা থেকে ভারতের কলকাতার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে বেনাপোল সীমান্ত অতিক্রম করে কলকাতায় গিয়ে শেষ হবে।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপালের মধ্যে মহাসড়ক যোগাযোগ সম্প্রসারণ ও সংহত করার লক্ষ্যে গত ১৫ জুন ভুটানের রাজধানী থিম্পুতে বিবিআইএন দেশসমূহের পরিবহণ মন্ত্রীরা সভায় Motor Vehicles Agreement (MVA) for the Regulation of Passenger, Personal and Cargo Vehicular Traffic Between Bangladesh, Bhutan, India, and Nepal স্বাক্ষর করেন। চলতি বছরের ২৪ আগস্ট মন্ত্রিসভা কর্তৃক BBIN MVA অনুসমর্থন করা হয়। BBIN MVA বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে গত সেপ্টেম্বরে ঢাকায় Meeting on the Proposed Protocols to Bangladesh-Bhutan-India-Nepal Motor Vehicles Agreement অনুষ্ঠিত হয়। সভায় Passenger Vehicle Trial Run, Cargo Vehicle Trial Run, BBIN Friendship Motor Rally অনুষ্ঠানের সময়, সম্ভাব্য রুট ইত্যাদি বিষয়ে ঐকমত্যে পৌঁছানো সম্ভব হয়।

গত ১৫ জুন BBIN MVA চুক্তি স্বাক্ষরের পরপরই থিম্পুতে BBIN Motor Rally অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে রুট সার্ভে উদ্বোধন করা হয়। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপাল অংশের সার্ভে সম্পন্ন করা হয়েছে। ভারতের চার সদস্যের একটি BBIN Route Survey প্রতিনিধি দল ১ অক্টোবর আগরতলা/আখাউড়া দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে চট্টগ্রাম ও ঢাকা হয়ে বেনাপোল পর্যন্ত বাংলাদেশ অংশে সার্ভে সম্পন্ন করে।

সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সড়ক পরিবহণ ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এমএএন ছিদ্দিকসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই