মেইন ম্যেনু

জানেন, ইন্টারভিউতে কোন বিশেষ কারণে আপনি বাদ হতে পারেন!

চাকরির ইন্টারভিউয়ে প্রার্থীদের জন্যে ক্ষতিকর হতে পারে বেশ কয়েকটি বিষয়। চোখে চোখ না রাখতে পারা, আমতা আমতা করা বা অতিরিক্ত কথা বলা ইত্যাদি কারণে প্রার্থী চাকরির সম্ভাবনা নষ্ট করেন। কথা-বার্তা ও অঙ্গভঙ্গির কারণে প্রার্থীরা পিছিয়ে পড়েন। বিশেষজ্ঞদের মতে, আচরণের কারণে প্রার্থী বেশি বিপদে পড়েন।

গবেষণায় বলা হয়, ৬০ শতাংশ প্রার্থী সম্ভাব্য চাকরি হারান কেবলমাত্র আচরণকগত কারণে। বিশেষ করে দুর্বল হ্যান্ডশেকের কারণে অনেক প্রার্থীকে বাতিল করে দেন প্রশ্নকর্তারা।

৪০ শতাংশ প্রার্থী জানান, চাকরিদাতারা তাদের বাতিল করেছেন এই কারণে যে, প্রার্থীদের আচরণে মনে হয়ে যে তারা আগ্রহী নন। ৩২ শতাংশকে বাতিল করা হয় দেরি করে ইন্টারভিউয়ে উপস্থিত হওয়ার জন্য। আর ৩০ শতাংশ বিফল হয় চোখে চোখে যোগাযোগের বিষয়ে ব্যর্থ হওয়ার জন্য। প্রায় ২৫ শতাংশ সঠিক পোশাক

নির্বাচনে ব্যর্থ হওয়ার কারণে বাতিল হয়ে যান। আর ১০ শতাংশ বাদ হয়ে যান দুর্বল করমর্দনের কারণে।
কথা বলার সময় ৪০ শতাংশ বাতিল হয়ে যান হাত নাড়িয়ে আলাপচারিতা করার কারণে। প্রায় ৩০ শতাংশ অতিরিক্ত কথা বলার কারণে অযোগ্য ঘোষিত হয়েছেন।

৭০০ জন কর্মজীবীর ওপর এ গবেষণা পরিচালিত হয়েছে। ইন্টারভিউয়ে যেসব সাধারণ কারণে প্রার্থীরা বাতিল হয়ে যান তা দেখার চেষ্টা করা হয়েছে। এদের প্রায় ৭০ শতাংশ ইন্টারভিউ দিয়ে বাদ পড়েছেন।

এসব কারণে বাদ পড়া বেশ দুঃখজনক বিষয়। যেখানে প্রার্থীরা আত্মবিশ্বাসী থাকেন এবং প্রস্তুতিও ভালো থাকে, তাদের পক্ষে এসব কারণে বাদ পড়া মেনে নেওয়া যায় না।

তাই সফল ইন্টারভিউয়ের জন্য কেবল প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেওয়াই যথেষ্ট নয়। প্রার্থীকে সুষ্ঠুভাবে হ্যান্ডশেক করা পর্যন্ত শিখতে হবে। নয়তো বাদ পড়া বিচিত্র কিছু নয়।






মন্তব্য চালু নেই