মেইন ম্যেনু

জানেন কি সবথেকে বিশুদ্ধ ক্যাকটাস পানি

মানুষের খাদ্য তালিকায় অনেক বৈচিত্র্যপূর্ণ খাবারাই যোগ হয়। কিন্তু এগুলো ফ্যাশনেবল খাবার হিসাবেই বেশ কিছু কাল পাতে স্থান পায়। কিন্তু এসব খাবারের মধ্যে পুষ্টিগুণ দিয়ে কিছু খাবার স্থায়ী জায়গা করে নেয়। ঠিক যেভাবে দিন দিন জনপ্রিয় হয়েছে ক্যাকটাসের পানি।

ইন্টারনেট ও বিভিন্ন ফ্যাশন ম্যাগাজিনের দেওয়া অনুযায়ী, এটি একটি সুপার পানীয়। স্বাস্থ্যকর ত্বক থেকে শুরু করে দেহের পানির অভাব দূর করতে অতুলনীয় ক্যাকটাসের পানি। এই পানীয়ের গুণাগুণ সম্পর্কে বহু শুনেছেন বিশেষজ্ঞ ড. ম্যানি। অনেকেই বলেন, ডাব বা নারকেলের পানির চেয়েও ভালো ক্যাকটাসের মধ্যে জমে থাকা পানি। পুষ্টিবিজ্ঞানী ফ্রান্সেস লার্জম্যান-রুথ জানান, ক্যাকটাসের পানি মিষ্টি। এটি কাঁটাপূর্ণ পিয়ার ক্যাকটাসের ফল থেকে তৈরি হয়। এই পানীয়তে প্রচুর ভিটামিন সি, ইলেকট্রোলাইটস, খনিজ এবং প্রদাহনাশক উপাদান রয়েছে।

বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, এতে আছে বিশেষ ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বেটালাইন। অ্যালকোহল খাওয়ার পর নেশা কাটাতে কাজ করে এটি। আবার দেহের পানির অভাবও পূরণ করে। এ ছাড়া টাইপ টু ডায়াবেটিস যাদের আছে তাদের রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ কমাতেও কাজ করে ক্যাকটাস পানি।

আমেরিকার বাজারে বেশ জনপ্রিয়, এক বোতল বিক্রি হয় ২.২৫ ডলারে। ড. ম্যানির মতে, দেহে পানির অভাব পূরণ করতে সাধারণ খাবার পানিই ভালো। তবে নতুন কিছু শুরু করার আগে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া উচিত বলে জানান ড. ম্যানি।






মন্তব্য চালু নেই