মেইন ম্যেনু

জাপার প্রেসিডিয়াম সভায় যোগ দেননি রওশনপন্থীরা

চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সভাপতিত্বে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়ামের বৈঠক শুরু হয়েছে। তবে এতে যোগ দেননি বিরোধী দলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ ও তার অনুসারীরা। গত বেশ কয়েকদিন ধরে দলের মধ্যে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে টানাপোড়েনের পর এরশাদ এই বৈঠক ডাকেন। বিশেষ করে মন্ত্রিসভা থেকে জাপার বের হয়ে আসা নিয়ে রওশন ও এরশাদের মধ্যে বিরোধ প্রায় প্রকাশ্য হয়ে উঠেছে।

আজ রবিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জাপা চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে এই বৈঠকটি শুরু হয়।

রওশনপন্থি একাধিক নেতা আগেই জানিয়েছিলেন, রওশন এরশাদ, জাপার তিন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী ও তাদের অনুসারীরা সভায় যোগ দেবেন না।

জাপায় গত দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে টানাপড়েন চলছে। কো-চেয়ারম্যান হিসাবে এরশাদ তার নিজের ভাইকে নিয়োগে দেয়ার পর থেকেই বিরোধ প্রকাশ্যে রূপ নেয়।রওশনপন্থিরা এরশাদের ওই অবস্থানের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার জেরে দলের মহাসচিবের পথ খোয়াতে হয় জিয়াউদ্দিন বাবলুকে। এরশাদ শেখ হাসিনার মন্ত্রিসভা থেকে বের হয়ে আসার ওপর জোর দিলেও প্রতিদ্বন্দ্বী রওশন বলছেন, এমন সম্ভাবনা নেই। সার্বিক বিষয় নিয়ে রওশন সম্প্রতি তার দলবল নিয়ে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেষ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করেন এবং এরপর থেকে রওশনপন্থিরা যখন নিজেদেরকে চাঙ্গা মনে করছিলেন ঠিক তখনই এরশাদ প্রেসিডিয়ামের বৈঠক ডাকলেন। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ৯ মাস পর অনুষ্ঠিত হচ্ছে প্রেসিডিয়াম সভা। সর্বশেষ গত বছরের ২৪ এপ্রিল হট্টগোলের কারণে মাত্র ১৫ মিনিটেই প্রেসিডিয়াম সভার ইতি ঘটে।

রওশনপন্থিরা শুরু থেকেই প্রেসিডিয়াম ও সংসদীয় দলের যৌথসভার দাবি জানিয়ে আসছেন। ৪০ সদস্যের সংসদীয় দলে রওশনপন্থিরা বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠ। প্রায় ৩০ জন এমপি রওশনের অনুসারী। ৩৬ সদস্যের প্রেসিডিয়ামে এরশাদের অনুসারীরা সংখ্যাগরিষ্ঠ। মাত্র ৭ জন রওশনপন্থি।






মন্তব্য চালু নেই