মেইন ম্যেনু

জাভিকে ভীষণ মিস করবে ক্যাম্প ন্যু

ক্যাম্প ন্যু। বার্সেলোনার ঘরের মাঠ। আবার এই মাঠে ঘরের ছেলে জাভি হার্নান্দেজ। তার জন্ম যে কাতালানেই। জায়গাটা নির্দিষ্ট করে বলতে গেলেন জাভির জন্মস্থান স্পেনের তেরাসায়। ক্যাম্প ন্যুতে অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে জাভির।

বার্সেলোনার হয়ে মোট ৭৬৫ ম্যাচ খেলে ৮৪ গোল করেছেন জাভি। যা তাকে আসীন করেছে বার্সার হয়ে সর্বকালের সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ডের আসনে। তার মধ্যে স্প্যানিশ লা লিগায় রয়েছে ৫০৫ ম্যাচ। নামের পাশে যোগ করেছেন ৫৮ গোল। সব মিলিয়ে বার্সার কিংবদন্তি বলাই যায় জাভিকে।

শিরোপার দিকে তাকালে অনেককে ছাড়িয়ে যাবেন জাভি। বার্সেলোনায় ১৭ বছরের ক্যারিয়ারে ২৪টি ট্রফি জিতেছেন। আটটি লা লিগার শিরোপা জিতেছেন ৮ বার। রয়েছে তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপাও।

এদিকে বার্সার হয়ে যতগুলো ম্যাচ খেলেছেন জাভি, তার মধ্যে অধিকাংশ ম্যাচই অনুষ্ঠিত হয়েছিল ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে। সুতরাং এই মাঠের প্রত্যেকটি ঘাসও বোধহয় জাভিকে ভালোভাবে চেনে। কেননা ওই সব ঘাস ৩৫ বছরের এই ফুটবলারের ছোঁয়া পেয়েছে।

শনিবার কোপা দেল রের ফাইনালই ছিল ক্যাম্প ন্যুতে জাভির শেষ ম্যাচ। ম্যাচটি তাকে দিয়েছে দুহাত ভরে। তারই প্রিয় সতীর্থ লিওনেল মেসি ওই ম্যাচে করেছেন জোড়া গোল। সম্প্রতি যাকে নিয়ে জাভি বেশ উচ্ছ্বসিত ছিলেন, সেই নেইমারও গোল করেছেন।

সব মিলে গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে অ্যাথলেটিকো বিলবাওকে ৩-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা নিশ্চিত করেছে বার্সা। সুতরাং ন্যু ক্যাম্পে জাভির শেষটা হলো শিরোপা উদযাপনে। চলতি মৌসুমে এটি বার্সেলোনার দ্বিতীয় ট্রফি। আগামী ৬ জুন চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে জুভেন্টাসের বিপক্ষে মাঠে নামবেন জাভি। সেদিনও শিরোপা উদযাপন করতে চাইবেন বার্সেলোনার এই জীবন্ত কিংবদন্তি।

তার আগে ক্যাম্প ন্যুতে জাভির বিদায়টা হলো স্মরণীয়। জাভি বলতেই পারেন, ‘টা-টা ন্যু ক্যাম্প। তোমাকে ভুলব না। তোমার স্মৃতি আমি ভুলতে পারব না।’ অপরদিকে বার্সার ঘরের মাঠও বলতে পারে, ‘সুখে থেকো, ভালো থেকো জাভি। তোমাকে ভুলব না। তোমার স্মৃতিও আমরা কোনো দিন ভুলব না।’






মন্তব্য চালু নেই