মেইন ম্যেনু

জার্মানিতে সন্ত্রাসী হামলার ৩ দিন পর খালেদার শোক

জার্মানিতে সন্ত্রাসী হামলার তিনদিন পর ওই ঘটনায় তীব্র নিন্দা এবং নিহতদের প্রতি শোক জানিয়ে গণমাধ্যমে বিবৃতি দিলেন বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া।

গত ২২ জুলাই জার্মানির মিউনিখে সন্ত্রাসীদের গুলিতে ৯ জন নিহত ও অসংখ্য লোক আহত হয়। এর তিনদিন পর মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে খালেদা জিয়া বলেন, ‘এই বর্বরোচিত ঘটনা বিভীষিকাময় ও অমানবিক। এই ঘটনায় আমি গভীরভাবে মর্মাহত হয়েছি, ঘৃণা প্রকাশ করছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘সন্ত্রাসীরা সামাজিক অভিশাপ, এরা উন্মত্ত বিকারগ্রস্ত, এদের কোনো দেশ-কাল নেই। মানুষের রক্তক্ষরণের নেশা এদেরকে বিভোর করে রেখেছে। বাংলাদেশ, মধ্যপ্রাচ্য, আমেরিকা, জার্মান, ফ্রান্স, বেলজিয়ামসহ পৃথিবীর নানা দেশে এখন চলছে সন্ত্রাসী উগ্রবাদীদের দ্বারা সাধারণ মানুষের জীবন কেড়ে নেয়ার উন্মাদনা। বর্তমান বৈশ্বিক সন্ত্রাসের পরিকাঠামো আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আজ এক রক্তশীতল করা উদ্বেগ ও ভয় ছড়িয়ে পড়েছে।’

বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ‘পৃথিবীর দেশে দেশে শান্তিপ্রিয় জনসমাজে একের পর এক অভিনব পৈশাচিক হামলায় অনেক মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়ে রক্তস্রোত বইয়ে দেয়া হচ্ছে। যারা সন্ত্রাসী পৈশাচিক পথে পা বাড়িয়েছে, তারা মানসিকভাবে অসুস্থ। এরা মানবজাতির অর্জিত সভ্যতাকে গহীন অরণ্যে ঠেলে দিচ্ছে। ভিন্ন ধর্মীয় গোষ্ঠী, মুক্তচিন্তার মানুষ, নানা শ্রেণি-পেশার মানুষসহ নিরীহ সাধারণ মানুষও এদের প্রাণবিনাশী নিষ্ঠুর হামলার শিকার।

তিনি বলেন, নৃশংস গুপ্তহত্যা, নিশানা করে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হত্যা অথবা উৎসবমুখর জনসমাবেশের ওপর ট্রাক চালিয়ে মানুষের দেহকে থেতলিয়ে দেয়া ও নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করা বিবেকবর্জিত পশুপ্রবৃত্তির অমানুষদের পক্ষেই সম্ভব। বিশ্বব্যাপী সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে পৃথিবী থেকে উগ্রবাদী সন্ত্রাসীদের নির্মূল করতে এই মুহূর্তে জরুরি উদ্যোগ নিতে হবে। অন্যথায় মানবজাতির সকল অর্জন অন্ধকার গলিতে হারিয়ে যাবে।

বিবৃতিতে খালেদা জিয়া মিউনিখে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহতদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ এবং তাদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। একইসঙ্গে আহতদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন এবং তারা যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেন সেই কামনাও করেন।

নিহতদের পরিবার-পরিজনসহ নিকটজনদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে ধৈর্যের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য জার্মানির সরকার ও জনগণকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান বাংলাদেশের সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী।

খালেদা জিয়া বলেন, ‘অপরাধীদের দ্রুত শাস্তি নিশ্চিত হবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।’

অপর এক বিবৃতিতে এই রক্তাক্ত ঘটনায় জড়িত সন্ত্রাসীদেরকে ‘মানবতার শত্রু’ আখ্যায়িত করে নিহতদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ এবং শোকাহত স্বজনদের প্রতি গভীর সহমর্মিতা জ্ঞাপন করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।






মন্তব্য চালু নেই