মেইন ম্যেনু

জিরা পানি পানের স্বাস্থ্যের ৮ উপকারিতা আপনি জানেন কি?

তীব্র গরমে প্রাণ জুড়াতে ঠান্ডা পানীয়ের জুড়ি নেই। কিন্তু ঠান্ডা পানীয় স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এর পরিবর্তে শরবত পান করতে পারেন। শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতে পান করতে পারেন জিরা পানি।স্বাদে ও পুষ্টিতে ভরপুর এটি ভারতের গ্রীষ্মকালীন একটি জনপ্রিয় পানীয়, যা আমাদের দেশেও বেশ প্রচলিত। এর রয়েছে বেশ কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা।

১। হজমে সহায়তা করা

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে জিরা হজমে সাহায্য করে। জিরা পানি কার্বোহাইড্রেইড, গ্লুকোজ এবং এনজাইম ভাঙতে সাহায্য করে। এটি মেটাবলিজম বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। নিয়মিত জিরা পানি পানে ডায়রিয়া, বমি বমি ভাব, মর্নিং সিকনেস দূর হয়ে যায়। এছাড়া হজমে সহায়তা করে থাকে এই জিরা পানি।

২। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি

জিরা আয়রনের চমৎকার একটি উৎস। যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার কাজ পরিচালনা করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এতে আয়রনের পাশাপাশি বেশ ভালো পরিমান ভিটামিন এ ও সি থাকে যা থেকে অ্যান্টি অক্সিডেণ্টের সুবিধা পাওয়া যায়।

৩। পানিশূন্যতা দূর

কুসুম গরম জিরা পানি শরীরের পানি শূন্যতা দূর করে। আপনাকে সুস্থ এবং সতেজ রাখে দীর্ঘসময়।

৪। রক্তশূন্যতা দূরে

জিরাতে থাকা আয়রন রক্তস্রোতে অক্সিজেন বহনকারী হিমোগ্লোবিনের পরিমান বৃদ্ধি করে। এছাড়া জিরা পানি আয়রনের অভাবজনিত রক্তশূন্যতার জন্য বেশ উপকারী।

৫। স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে

জিরা মস্তিস্কের শক্তিকে উন্নত করে।তাই অল্প বয়স থেকেই যদি জিরাপানি খাওয়া যায় তাহলে তা উল্লেখযোগ্য ভাবে স্মৃতিশক্তি ও বুদ্ধিমত্তাকে তীক্ষ্ণ করে।

৬। ভালো ঘুমের জন্য

ইনসোমেনিয়া বা অনিদ্রা সমস্যা দূর করতে জিরা পানি বেশ কার্যকর। নিয়মিত জিরা পানি পানে অনিদ্রা সমস্যা দূর হয়ে থাকে।

৭। তলপেটের ব্যাথা কমাতে

মাসিকের সময় তলপেটে ব্যাথা অনুভব করেন অনেক নারীরা, তাদের এই ব্যাথা কমাতে অল্প অল্প করে সারাদিন জিরাপানি পান করতে পারেন।

৮। মায়েদের বুকের দুধ বৃদ্ধিতে

নতুন মায়েদের বুকের দুধ বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। শিশু দুধ খাওয়ানোর সময় নিয়মিত জিরা পানি অথবা জিরা সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করুন।






মন্তব্য চালু নেই