মেইন ম্যেনু

জিয়ার জন্মদিন জাঁকজমকভাবে করতে চায় বিএনপি

দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮০তম জন্মবার্ষিকী এবার জাকজমকপূর্নভাবে পালন করতে চায় বিএনপি। লাগাতার অবরোধের মধ্যে গত বছর তার জন্মদিন সংক্ষিপ্ত পরিসরে পালন করা হয়। সেজন্য এবার বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি পালন করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

আগামী ১৯ জানুয়ারি জিয়াউর রহমানের ৮০তম জন্মবার্ষিকী। প্রতিবছর এই দিনটি বিএনপি কেন্দ্রীয়ভাবে আলোচনা সভা, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, গণমাধ্যমে ক্রোড়পত্র প্রকাশসহ নানা কর্মসূচিতে দিনটি পালন করে আসছে।

দলীয় সূত্র বলছে, এবার দেশব্যাপী জিয়াউর রহমানের জন্মদিন উদযাপনের জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি। দু’একদিনের মধ্যেই যৌথ সভা আহ্বান করে বিস্তারিত কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে। রাজধানীতে বড় ধরনের আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। এতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখবেন।

১৯৩৬ সালের ১৯ জানুয়ারি বগুড়ার গাবতলী উপজেলার বাগমারা গ্রামে জিয়াউর রহমানের জন্ম। শিক্ষা জীবন সমাপ্ত করে সামরিক বাহিনীতে যোগ দেন তিনি।

মুক্তিযুদ্ধের শুরুতে ২৬ মার্চ চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পক্ষে স্বাধীনতার ঘোষণা পাঠ করে জাতীয় পরিচিতি পান জিয়া। মুক্তিযুদ্ধে একটি সেক্টরের কমান্ডারের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ‘জেড’ ফোর্সের অধিনায়ক ছিলেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বের জন্য বীরউত্তম খেতাব পান তিনি।

১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যাকা-ের পর পরিবর্তিত রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসেন জিয়া। সামরিক শাসক হিসেবে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়ে পরে রাষ্ট্রপতি হন জিয়াউর রহমান। ১৯৭৮ সালে ১ সেপ্টেম্বর রাজনৈতিক দল বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেন তিনি।

১৯৮১ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানে নিহত হন জিয়া। এরপর বিএনপির হাল ধরেন তার স্ত্রী খালেদা জিয়া। জিয়াউর রহমানের বড় ছেলে তারেক রহমান বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান।






মন্তব্য চালু নেই