মেইন ম্যেনু

জীবন দিয়ে তিন বছরের মেয়েকে বাঁচালেন বাবা

শেষ নিঃশ্বাস ছাড়ার আগে প্রবল আকুতি নিয়ে জড়িয়ে ধরেছিলেন শিশুকন্যাকে। অন্তিম আদরে বেঁধে রেখেই মেয়ের প্রাণরক্ষা করলেন মত্যুপথযাত্রী বাবা। ধ্বংসস্তূপ সরানোর পরে এমনই দৃশ্য দেখা গেল।

চীনের পূর্ব প্রদেশ ঝেজিয়াংয়ের ওয়েনঝৌ শহরে একই সঙ্গে ধ্বসে পড়ে চারটি ছয়তলা বিশিষ্ট ভবন। দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ২২ জন। ঘটনার ১২ ঘণ্টারও পরে কংক্রিট আর লোহার স্তূপের গভীরে চাপা পড়া এক শিশুকন্যাকে উদ্ধার করা হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যাচ্ছে, শিশুকন্যাকে দুই হাতে জড়িয়ে ধরে রেখেছেন প্রাণহীন বাবা। আসলে মৃত্যুমুখে সন্তানকে বাঁচাতেই দুই হাত দিয়ে আঘাত থেকে আড়াল করেছিলেন হতভাগ্য পিতা। আর তাতেই বেঁচে গিয়েছে বছর তিনেকের মেয়ে উ নিংঝি। তবে শরীরে সামান্য আঘাত ছাড়া ক্ষতি হয়নি নিংঝির।

উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা বলছেন, নিজের রক্ত-মাংস দিয়ে মেয়েকে ঘিরে আড়াল তৈরি করেছিলেন মৃত ব্যক্তি। সেই ফোকরে থেকে মেয়েটি স্বচ্ছন্দে নিঃশ্বাস নিতে পেরেছে। মরতে বসেও নিজের সন্তানকে রক্ষা করে গিয়েছেন পিতা।

বাড়ি ধসে পড়ার সময় নিজেদের ফ্ল্যাটের লিভিংরুমে খেলা করছিলেন বাবা-মেয়ে। সেই সময়ই ভেঙে পড়ে ওই বহুতল ভবন। ঘরের অন্য প্রান্ত থেকে মেয়েটির মায়ের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার দুর্ঘটনার ১২ ঘণ্টারও পরে ভাঙা কংক্রিটের স্তূপ থেকে উদ্ধার হয় অর্ধনগ্ন শিশুটি। তাকে সঙ্গে সঙ্গে অ্যাম্বুলেন্সে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে সে সুস্থ আছে।






মন্তব্য চালু নেই