মেইন ম্যেনু

জীবন সুরক্ষায় লবন কম খান

লবন ছাড়া জীবন বাঁচে? সেই যে রাজার গপ্পো, যে মেয়েটি লবন দিয়ে শাক ভাত খাইয়েছিল তাকেই তো রাজামশাই পরে বেশি আদর করেছিলেন। মানুষের জিভের স্বাদের প্রাথমিক অংশই লবনের। লবন ছাড়া তরকারী! কল্পনাই করা যায়না!তবে সেটার একটু খারাপ দিক আছে, শুনুন।

অতিরিক্ত পরিমাণ লবন খেয়ে সারা পৃথিবীতে হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েন বহু মানুষ। নতুন এক গবেষণার রিপোর্ট অনুযায়ী পৃথিবীতে প্রত্যেক বছর ১৬ লক্ষেরও বেশি মানুষ মারা যান অতিরিক্ত শরীরে অতিরিক্ত সোডিয়াম জমা হওয়ায়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্ধারিত পরিমাণ অনুযায়ী দিনে দুই গ্রামের বেশি লবন খাওয়া উচিৎ নয়। গবেষকরা ১৮৭টি দেশের সাধারণ মানুষের উপর পরীক্ষা চালিয়ে দেখেছেন বহু ক্ষেত্রেই দিনে এর থেকে বেশি পরিমাণ লবন খেয়ে থাকেন তারা। অতিরিক্ত পরিমাণ লবন উচ্চ রক্তচাপের অন্যতম কারণ। উচ্চ রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয় স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা। গবেষক সারা পৃথিবী জুড়ে ২০৫টি সমীক্ষা করে দেখেছেন একজন মানুষ গড়ে প্রতিদিন প্রায় ৩.৯৫ গ্রাম লবন খেয়ে থাকেন। অর্থাৎ যা নির্ধারিত পরিমাণের প্রায় দ্বিগুণ। মধ্য এশিয়ায় লবন খাওয়ার প্রবণতা সবথেকে বেশি। এই অঞ্চলের কোনও ব্যক্তি দিনে গড়ে প্রায় ৫.৫১ গ্রাম লবন খেয়ে থাকেন।

লবনে সোডিয়াম থাকে আর এই সোডিয়াম হল আমাদের দেহের একটা বড় শত্রু। এটা রক্তে তরল পদার্থের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়, ফলে রক্ত চাপ বেড়ে ম্যালা খারাপ অসুখ বিসুখ হয়।

আসুন তো দেখি কিসে কিসে সোডিয়াম তথা লবন বেশি থাকে: পাউরুটি, রোল, পিৎজা, চিকেন ফ্রাই, পনীরের বার্গার বা স্যান্ডউইচ, পাসতা, আলু চিপস, পপকর্ন ইত্যাদি। মনটা খারাপ হয়ে গেল? এর থেকে বরং এইসব খাওয়ার কম খান। বিভিন্ন ধরনের ফল খান।

যারা ৫১ বছর বা তার বেশী বয়সী তারা কখনোই ১৫০০ মি.গ্রামের বেশী লবন খাবেন না, মানে তরকারিতে এমনিতেই যেটুকু খেলেন ঠিক আছে। পাতে কাচা লবন খাবেনই না। টক খাবেন না। কারন, টক খেলে লবন খাবেনই, সুতরাং রাস্তায় আমড়া বা তেতুল বা জাম্বুরা অন্যান্য টক খাবার নিষেধ। খেলে লবন ছাড়া খেতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই