মেইন ম্যেনু

জেনে নিন, অভিজাত রেস্টুরেন্টে গিয়ে ভুল এড়াতে কি করবেন

অভিজাত রেস্টুরেন্টগুলোতে খেতে বসে আচার-আচরণ সংক্রান্ত নিয়ম-কানুন নিয়ে বেশ চিন্তিত থাকতে হয়। বিশেষ করে যারা প্রথম গিয়েছেন এমন স্থানে, তারা তো বেশ মানসিক চাপের মধ্যে থাকেন। সোশাল মিডিয়া ‘কুয়োরা’তে অনেকেই জানতে চেয়েছেন, এমন অভিজাত ও দামি রেস্টুরেন্টে গিয়ে মানুষ বড় কোন ভুলগুলো করে থাকেন? অভিজ্ঞজনরা দিয়েছেন জবাব। এগুলো জেনে নিন। এখানে ভুল এড়াতে কি করতে হবে তাই তুলে ধরা হয়েছে।

১. শেফের কাছ থেকে অর্ডার নিন : অনেকে এই ভুলটা করেন। তারা যা খেয়ে থাকেন, মেনুতে গিয়ে তাই খোঁজেন। অভিজাত রেস্টুরেন্টে গিয়ে তাই অর্ডার দিন যা কিনা ওই রেস্টুরেন্টকে বিশেষত্ব দিয়েছে। অর্থাৎ, শেফের বিশেষ রেসিপিটাই বেছে নেওয়া উচিত। তা ছাড়া অন্যান্য যেসব খাবার নাম করেছে তাই নিন।

২. পুরোটা উপভোগ করুন : দামি রেস্টুরেন্ট যাচ্ছেন মানেই বেশ কিছু পয়সা খরচ হবে আপনার। কাজেই পয়সা খরচ করে পুরোটা সময় ও খাবার উপভোগ করুন। প্রথমেই বেভারেজ বেছে নিবেন না। খাবারের স্বাদের বিশেষত্ব এবং মনোযোগের সাথে বোঝার চেষ্টা করুন। যথেষ্ট সময় দিন।

৩. পোশাকে কেতাদুরস্ত থাকুন : ভালো একটি রেস্টুরেন্ট খেতে যাচ্ছেন। এটা বিশেষ উপলক্ষ হতে পারে। পোশাকে যথাযথ থাকুন। আবার অতিমাত্রায় সাজগোজের দারকার নেই। একেবারে সাদামাটাভাবেই যাবেন না। পোশাকের মাধ্যমে নিজে ও নিজের আচরণকে প্রকাশ করুন।

৪. প্রয়োজনে প্রশ্ন করে জেনে নিন : অনেকে দামি রেস্তোঁরায় বসে স্টাফদের প্রশ্ন করতে ভয় করেন। আসলে স্টাফরা আপনাদের যেকোনো সেবা দিতেই প্রস্তুত থাকেন। কিছু না জানা কোনো ব্যাপার নয়। তাই প্রশ্ন করতে লজ্জাবোধ করবেন না। যেকোনো খাবারের উপকরণ বা দামের বিষয়ে জেনে নিন।

৫. বিল নিয়ে দরকষাকষি নয় : এটি আচরণগত ভুল। এসব রেস্টুরেন্টে খাবারের দাম একটু বেশি। কিন্তু খাওয়া শেষে অনেকেই বিল দিতে গিয়ে দাম নিয়ে নানা অভিযোগ তোলেন। যদি দাম নিয়ে আপনার আপত্তি থাকে, তবে এসব জায়গায় না আসাই ভালো।

৬. ভদ্রোচিত হন : অযথাই অভদ্র আচরণ করবেন না। এসব রেস্টুরেন্টের স্টাফরা আপনাকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করতে সদা প্রস্তুত। তারা প্রশিক্ষিত। তাদের কোনো কিছু ঠিক করতে যাবনে না। তাদের কাছে আপনি মেহমান।

৭. বিল নিয়ে গড়িমসি করবেন না : কিসের দাম কত তা দেখে নিন। আগেই বলা হয়েছে, দরদাম করার কোনো সুযোগ নেই। যদি বাজেটের চেয়ে বেশি বিল চলে আসে, তবে তা পরিশোধের উপায়গুলো জেনে নিন। নগদ বা ক্রেডিট কার্ডের মাদ্যমে দেওয়া যেতে পারে।

৮. বিশেষ খাবারের দাম জিজ্ঞাসা করে নিন : কিছু রেসিপি বাড়তি যত্নে ও বাড়তি উপকরণে তৈরি করা হয়। এদের দাম স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হবে। যেকোনো খাবারের স্পেশাল সংস্করণ অর্ডারের ভিত্তিতে করে দেওয়ার ব্যবস্থা থাকতে পারে। এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করে নিন।

৯. আক্রমণ নয় : ওয়েটার বা ওয়েট্রেসকে কোনো অবস্থাতেই আঘাত করবেন না। তারা সব সময় আপনার সঙ্গে ভালো আচরণ করবেন। এই নির্দেশ কর্তৃপক্ষ দিয়ে রেখেছে। কোনো অভিযোগ থাকলে ম্যানেজারকে বলুন। কিন্তু তাকে শিক্ষা দেওয়ার দায়িত্ব আপনার ওপর বর্তায় না।






মন্তব্য চালু নেই