মেইন ম্যেনু

জেনে নিন কফ সিরাপ যে কারণে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর

আপনার সন্তানকে কফ সিরাপ দেওয়ার আগে আরেকবার চিন্তা করে নিন। কারণ বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, কফ সিরাপে কোডেইন নামে একটি উপাদান রয়েছে, যা শিশুদের জন্য ক্ষতিকর হিসেবে প্রমাণিত। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস। গবেষণায় দেখা গেছে, কফ সিরাপগুলো শিশুদের শরীরে খিঁচুনি, ঝিমুনি, অস্বাভাবিক হৃৎস্পন্দন, কিডনি ও লিভারের ক্ষতিসহ নানা সমস্যা তৈরি করে। কফ সিরাপে ব্যবহৃত কোডেইন উপাদানটি উৎপত্তি হয় আফিম থেকে। এ কারণে কোডেইন ১২ বছরের কম বয়সী শিশুদের সেবন নিষিদ্ধ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে।

তবে ভারতীয় কফ সিরাপে এ উপাদানটি অহরহ ব্যবহৃত হয়। এ ধরনের কিছু কফ সিরাপ হলো কোরেক্স, ফেন্সিডিল, বেনাড্রিল ও টেডি কফ। ২০১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে কোডেইন ব্যবহার করা ওষুধগুলো ১২ বছরের নিচের শিশুদের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়। এছাড়া নতুন মায়েদেরও এ উপাদানযুক্ত ওষুধ ব্যবহার করা নিষেধ। কফ সিরাপের মাধ্যমে কোডেইন গ্রহণ শিশুদের জন্য কেন ক্ষতিকর? এ প্রসঙ্গে বিশেষজ্ঞরা বলেন, এটি শিশুদের মারাত্মক ক্ষতির কারণ হতে পারে। এ উপাদানের পাশ্বপ্রতিক্রিয়া অতি প্রবল।

এ ধরনের কফ সিরাপ সেবনে সংজ্ঞা হারানো, হৃদরোগ ও মৃত্যু হতে পারে। এ কারণে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কোডেইনযুক্ত কফ সিরাপ থেকে শুধু শিশুদেরই নয়, সন্তানকে স্তন্যদানকারী নারীদেরও দূরে থাকা উচিত। তবে ভারতীয় কফ সিরাপগুলোতে বিপজ্জনক এ উপাদানটি থাকলেও তাতে কোনো সতর্কবার্তা থাকে না। এ কারণে এগুলো জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হয়ে উঠেছে। ভারত বিশ্বের অন্যতম বড় ওষুধের বাজার। তবে ভারতের বাজারে বহু ক্ষতিকর উপাদানসমৃদ্ধ ওষুধ রয়েই গিয়েছে বহুদিন ধরে। ১৯৮০ সালে বাংলাদেশে ভারতীয় কাশির সিরাপ বলে পরিচিত ওষুধ ফেনসিডিল নিষিদ্ধ হয়েছিল। কিন্তু ভারতে এ ওষুধটি সম্প্রতি নিষিদ্ধ করার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এটি ছাড়াও প্রায় ৩৪৪টি ফিক্সড-ডোজ কম্বিনেশন ফেব্রুয়ারিতে ভারতে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই