মেইন ম্যেনু

জেনে নিন বিশ্বের সবচেয়ে দামী ঘড়িগুলোর কথা

বিশ্বের সবচেয়ে দামী ঘড়ি নিয়ে বিস্ময়ের উদ্রেক হয়েছে কখনো আপনার? হ্যাঁ বিশ্বে এমন কিছু ঘড়ি আছে যার মূল্য কয়েক মিলিয়ন ডলার। মিলিয়ন ডলারের সেই ঘড়িগুলোর দামের কারণ এদের জটিল গঠনশৈলী ও এগুলোতে বসানো হীরা বা মূল্যবান পাথর বা রত্ন। এসব ঘড়ির বেশির ভাগেরই গঠন কলেজের ক্যালকুলাসের চেয়েও কঠিন এবং এদের ইতিহাস এত বড় যে যা জানতে পুরো জীবন ও লেগে যেতে পারে। এই দুর্বোধ্যতাই নিঃসন্দেহে ঘড়ি গুলোর মূল্য বাড়িয়ে দিয়েছে। আসুন জেনে নেই সেই রকম অতীব মূল্যবান কয়েকটি ঘড়ির কথা।

১। দ্যা পাটেক ক্যালিবার ৮৯

এই ঘড়িটির মূল্য ৫.১২ মিলিয়ন ডলার। প্রারম্ভিক ব্যবহারকারীদের জন্য এটি বিশ্বের সবচাইতে জটিল ঘড়ি, এতে ৩৩ টি জটিলতা আছে। এই ঘড়িটিকে বুঝতে একজন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এর ডিগ্রী প্রয়োজন। রান্নাঘরের সিঙ্ক ছাড়া আর সব কিছুই আছে এতে, এভাবে বলা যায়।

২। ব্র্যাকুইট পকেট ওয়াচ

৭ লক্ষ ৩৪ হাজার ডলার মূল্যের এই ঘড়িটি ১৮ ক্যারেট স্বর্ণ দিয়ে নির্মিত। এই স্টাইলিশ ঘড়িটির উপরিভাগ রুপালী বর্ণের। ঘরটি দেখলেই এর সূক্ষ্ম কারিগরি দক্ষতার ছাপ বুঝা যায়। এই ঘড়িটির সাথে একটি নিরাপত্তা চেইন আছে।

৩। ব্লাঞ্ছপেইন ১৭৩৫ গ্র্যান্ডি কমপ্লিকেশন

এই ঘড়িটি পরার জন্য বেশ দারুণ। এর মূল্য ৮ লক্ষ ডলার। এই ঘড়িটির খাপ তৈরি করা হয়েছে মূল্যবান ধাতু প্লাটিনাম দিয়ে এবং ঘড়ির বেল্ট তৈরি করা হয়েছে কুমিরের চামড়া দিয়ে। এই ঘড়ির ৭৪০ টি অংশ এবং প্রতিটি যন্ত্র হাতে তৈরি। এজন্যই এটি পৃথিবীর সবচেয়ে জটিল কব্জি ঘড়ি বা রিস্ট ওয়াচগুলোর একটি।

৪। লুইস মইনেট মেঙ্গিস্ট্রালিস

অনন্য ও চমৎকার জটিল এই ঘড়িটির মূল্য ৮ লক্ষ ৬০ হাজার ডলার। এই অতিশয় আড়ম্বরপূর্ণ পুরুষ হাত ঘড়িটি চাঁদে পাওয়া সত্যিকারের উল্কার টুকরা দিয়ে তৈরি হয়েছে।

৫। দ্যা রজার ডাবুইস এক্সক্যালিবার কোয়ারটার ওয়াচ

এই ঘড়িটির মূল্য ১.১ মিলিয়ন ডলার। ২০১৩ সালে এই ঘড়িটি আত্মপ্রকাশ করে। এটি তৈরি করতে ৭ বছরের দীর্ঘ গবেষণা ও ২৪০০ ঘন্টা সময় লাগে। পৃথিবীতে এই ঘড়ি মাত্র ৩টি আছে। ৫৯০ টি পার্টস নিয়ে ঘড়িটি তৈরি।

আরো কিছু মূল্যবান ঘড়ি হল – হাবলট ব্ল্যাক কেভিয়ার ব্যাং, চপারড সুপার আইস কিউব, পাটেক ফিলিপি স্কাই মুন টুরবিলন, দ্যা গ্রুবেল ফরচি আর্ট পিস ১ ওয়াচ ইত্যাদি।






মন্তব্য চালু নেই