মেইন ম্যেনু

জেনে রাখুন পেটের চর্বি বা ভুঁড়ি কমানোর একটি সহজ পক্রিয়া

পেটে চর্বি জমা বা ভুঁড়ির সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। কিন্তু রোগা হওয়ার জন্য কষ্টসাধ্য ব্যায়াম বা ডায়েটিং অনেকের পক্ষেই সম্ভব হয়ে ওঠে না। তাদের জন্য রইল পেটের চর্বি কমানোর একটি অতি সহজ প্রক্রিয়ার সন্ধান।

চিন দেশের প্রাচীন চিকিৎসাশাস্ত্রে উল্লিখিত হয়েছে এই প্রক্রিয়া। বলা হয়েছে, এক বিশেষ কায়দায় দিনে মাত্র দু’মিনিট পেটের উপর ম্যাসাজ করলেই কমে যাবে পেটের চর্বি। চাইলে নিজেই নিজের পেটে এই ম্যাসাজ করে নেওয়া যাবে। কিন্তু কীভাবে করতে হবে সেই বিশেষ ম্যাসাজ তা জেনে নিন :

১. মাটির উপর বা চৌকির উপর চিৎ হয়ে শুয়ে পড়ুন। চেষ্টা করবেন নরম গদির উপর না শুতে।

২. দু’টি হাতের পাতা পরস্পরের সঙ্গে ঘষতে থাকু‌ন যতক্ষণ না হাতের পাতা দু’টি গরম হয়ে ওঠে।

৩. পেটকে উন্মুক্ত করুন, অর্থাৎ পেটের উপরের কাপড় সরিয়ে দিন।

৪. একটি হাতের পাতা রাখুন নাভির উপরে। খেয়াল রাখবেন, হাতের আঙুল যেন ভাঁজ না হয়ে যায়।

৫. নাভিকে কেন্দ্র করে বৃত্তাকারে হাতটিকে পেটের উপর বোলাতে থাকুন। প্রথমে ছোট বৃত্তের আকারে, তারপর ধীরে ধীরে বৃত্তের পরিধিটিকে বড় করতে থাকুন। হাত বোলানোর সময়ে পেটের উপর হাতের সাহায্যে মৃদু চাপ বজায় রাখবেন।

৬. মিনিট দু’য়েকের মধ্যে ৪০ থেকে ৫০ বার এভাবে পেটের উপর হাত বোলান। দেখবেন, পেট এবং তলপেট অঞ্চলেও এই প্রক্রিয়ার ফলে মৃদু উত্তাপ অনুভব করছেন।

৭. এই প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও দু’মিনিটের মতো সময় পেটকে উন্মুক্ত অবস্থাতেই রাখুন এবং শুয়ে থাকুন। তারপর উঠে পড়ুন।

দিনে একবার এই ম্যাসাজ করাই যথেষ্ট। তবে চাইলে দু’বারও করতে পারেন। সুবিধা মনে হলে, নারকোল তেল অল্প গরম করে নিয়ে ম্যাসাজের সময় ব্যবহার করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন, খেয়ে ওঠার পর-পরই এই ম্যাসাজ কখনওই করবেন না। গর্ভবতী মহিলাদের পক্ষেও এই ম্যাসাজ করা উচিৎ হবে না।

কিন্তু এই ম্যাসাজ কীভাবে কমায় পেটের চর্বি? চিনের প্রাচীন চিকিৎসাশাস্ত্রে বলা হচ্ছে, এইভাবে ম্যাসাজ করলে হজম শক্তি বৃদ্ধি পায় এবং রক্ত সঞ্চালন বাড়ে। পরিণামে পেটে জমে থাকা চর্বি গলে যায় এবং ভুঁড়ি কমে যায়। দাবি করা হচ্ছে, নিয়মিত ম্যাসাজ করলে মাস খানেকের মধ্যেই পেটের মেদ অনেকখানি হ্রাস পাবে। তাহলে আর দেরি কীসের, আপনিও লেগে পড়ু‌ন। নিজেই যাচাই করে নিন না, প্রাচীন চৈনিক চিকিৎসাশাস্ত্রের এই টোটকা কতখানি কার্যকর।






মন্তব্য চালু নেই