মেইন ম্যেনু

জেমস বন্ড সিরিজের কুখ্যাত ১০ ভিলেন

জেমস বন্ডকে নিয়েই বিশ্বজুড়ে মাতামাতি। কিন্তু যাদের কারণে তার হিরোগিরি অর্থাৎ খারাপ চরিত্রের দুষ্ট মানুষগুলো- সেই ভিলেনরা অনেকাংশেই অবহেলিত। বন্ড সিরিজের পরবর্তী ছবি ‘স্পেক্টার’এ ভিলেনের চরিত্রে দেখা যাবে অস্ট্রিয়ার অস্কারজয়ী অভিনেতা ক্রিস্টফ ভালৎসকে। এ সুযোগে দেখা যাক বন্ড সিরিজের বিখ্যাত সব ভিলেনদের-

জওস – রিচার্ড কিল: বন্ড সিরিজের সবচেয়ে খারাপ ভিলেন সম্ভবত রিচার্ড কিল৷ ১৯৭৭ সালে মুক্তি পাওয়া ‘দ্য স্পাই হু লাভ্ড মি’ এবং ১৯৭৯ সালে ‘মুনব়্যাকার’ ছবিতে ভিলেনের চরিত্রে দেখা গেছে তাকে৷ তার সামনের পাটির স্টিলের দাঁতগুলো এবং দুর্ভাগ্যজনক পরিস্থিতি থেকে বারবার বেঁচে ফেরা ভিলেনদের ইতিহাসে কিংবদন্তী।

জেনারেল অরুমভ – গটফ্রিড জন: ১৯৯৫ সালে মুক্তি পাওয়া বন্ড সিরিজের ‘গোল্ডেন আই’ ছবিতে তৎকালীন নতুন জেমস বন্ড পিয়ার্স ব্রসনানের সঙ্গে অভিনয় করেছেন গটফ্রিড জন৷ রাশিয়ার জেনারেল অরুমভের চরিত্রে অভিনয় করে আন্তর্জাতিক খ্যাতি অর্জন করেন তিনি৷

অরিক গোল্ডফিঙ্গার – গ্যার্ট ফ্র্যোবে: বন্ড সিরিজে অভিনয় করা আরেক জার্মান ভিলেন গ্যার্ট ফ্র্যোবে৷ ২০০৩ সালে অ্যামেরিকান ফিল্ম ইন্সটিটিউট তাকে গত ১০০ বছরের বিবেচনায় ‘বিশ্বের ৪৯তম সেরা ভিলেন’ হিসেবে ঘোষণা করেছে৷

ফ্রান্সিসকো স্কারামাঙ্গা – ক্রিস্টোফার লি: ১৯৭৪ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ‘দ্য ম্যান উইথ দ্য গোল্ডেন গান’ ছবিতে ভিলেনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ক্রিস্টোফার লি৷

ম্যাক্স জরিন – ক্রিস্টোফার ভাল্কেন এবং মে ডে – গ্রেস জোন্স: রজার মুর অভিনীত শেষ ছবি ‘এ ভিউ টু এ কিল’ জেমস বন্ড ভয়ংকর পুঁজিবাদী এবং রাশিয়ার গোপন এজেন্ট ম্যাক্স জরিন ও তার বডিগার্ড প্রশিক্ষিত কিলার মে ডের মুখোমুখি হন৷ ছবিটি ১৯৮৫ সালে মুক্তি পায়৷

রোসা ক্লেব – লটে লেনিয়া: সন্ত্রাসী সংগঠন স্পেক্টারে কর্মরত রোসা ক্লেবের একটাই লক্ষ্য ছিল, জেমস বন্ডকে হত্যা করা৷ ১৯৬৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ফ্রম রাশিয়া উইথ লাভ’ ছবিটি ছিল বন্ড সিরিজের দ্বিতীয় ছবি৷ গোয়েন্দা সিরিজ হিসেবে ০০৭ যে জগৎ জয় করবে, সেটা এই ছবি থেকেই ধারণা করা হয়েছিল।

রাউল সিলভা – খাবিয়ার বার্ডেম: বন্ড সিরিজের সর্বশেষ ছবি ‘স্কাইফল’এ ভিলেনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন খাবিয়ার বার্ডেম৷ প্রতিশোধের নেশায় উন্মুক্ত এই স্প্যানিশ অভিনেত্রার অভিনয় ছবিটিকে যুক্তরাজ্যে সবচেয়ে লাভজনক এবং গোটা বিশ্বের হিসেবে সপ্তম লাভজনক ছবি হিসেবে প্রতিষ্ঠায় সহায়তা করেছে৷

ম্যাক্সিমিলান লার্গো – ক্লাউস মারিয়া ব্রান্ডাওয়ার: ‘নেভার সে নেভার এগেইন’ ছবিতে ভিলেনের চরিত্রে অভিনয় করেন ক্লাউস মারিয়া ব্রান্ডাওয়ার৷ ১৯৮৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিটিতে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী স্পেক্টারের প্রধানের চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি৷ ব্রান্ডাওয়ার দৃশ্যত পারমাণবিক বিপর্যয় সৃষ্টির চেষ্টা করছিলেন৷

ড. ব্লোফেল্ড – ট্যালি সাভালাস: ১৯৬৯ সালে ‘অন হার মেজেস্টি’স সার্ভিস’ ছবিতে বন্ড ভিলেনের চরিত্রি ছিলেন ট্যালি সাভালাস৷ সব বন্ড ভিলেনদের মধ্যে সবচেয়ে ভয়ংকর হিসেবে বিবেচনা করা হয় তাকে৷

ইলেক্ট্রা কিং – সোফি মার্সো: বন্ড সিরিজের ছবিগুলোতে জেমস বন্ডের পাশাপাশি বন্ড গার্ল এবং বন্ড ভিলেনদের থাকতেই হবে৷ তবে ১৯৯৯ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ‘দ্য ওয়ার্ল্ড ইস নট এনাফ’ ছবিটি ব্যতিক্রম৷ এতে বন্ড গার্ল সোফি মার্সো ভিলেনের চরিত্রে অবতীর্ণ হন৷ পরিনতি বন্ডের হাতে মৃত্যু৷






মন্তব্য চালু নেই