মেইন ম্যেনু

জেলায় জেলায় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন শুরু

১৯৭১ সালের আজকের দিনে বিভিন্ন জেলায় স্বাধীন বাংলাদেশেল পতাকা উত্তোলন শুরু হয়ে যায়। শহীদ মিনারে সকালে দেশের লেখক শিল্পীরা জমায়েতহয়ে আন্দোলনের পক্ষে শপথ নেন।

এ দিকে পূর্ব পাকিস্তানের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে রাওয়ালপিন্ডিতে প্রেসিডেন্ট হাউজে ইয়াহিয়া খান ও জুলফিকার আলী ভুট্টোর মধ্যে পাঁচ ঘণ্টা বৈঠক চলে। পূর্ব পাকিস্তানের অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতির জন্য তারা আওয়ামী লীগের সমালোচনা করেন।

এদিন ৫ই মার্চ হরতাল কর্মসূচী পালনকালে টঙ্গীতে সেনাবাহিনীর গুলিবর্ষণে ৬ জন নিহত ও ৩৫ জন আহত হয়। খুলনা ও রাজশাহীতেও যথাক্রমে ২ জন ও ১ জন নিহত হয়। টঙ্গীতে ২০ হাজারেরও বেশি শ্রমিক স্বাধিকার আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে সেনাবাহিনী নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করে।

এ ঘটনার প্রতিবাদে বিকেলে আওয়ামী লীগ, শ্রমিক লীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে বায়তুল মোকাররম থেকে এক বিশাল লাঠি মিছিল বের হয়। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে আওয়ামী লীগের তরফ থেকে ব্যাংকিং লেনদেনের ওপর নতুন নির্দেশ দেয়া হয়। দলের সাধারণ সম্পাদক তাজউদ্দীন আহমদ এদিন চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, সিলেট ও দেশের অন্যান্য স্থানে সংঘটিত বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরেন। যে কোন জরুরী পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য আওয়ামী লীগ একটি কন্ট্রোল রুম স্থাপন করে।

এদিন তাহরিক-ই-ইশতিকলাল পার্টির প্রধান এয়ার মার্শাল (অব) আসগর খান পাকিস্তানের সংহতি বিপন্ন উল্লেখ করে অবিলম্বে শেখ মুজিবের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের আহ্বান জানান।






মন্তব্য চালু নেই