মেইন ম্যেনু

জেল থেকে বের হয়েই সোজা মায়ের কবরে যাবেন সঞ্জয়

তিন বছরের সাজা শেষে জেল থেকে মুক্তি মিলছে বলিউড সুপারস্টার অভিনেতা সঞ্জয় দত্তের। ২৫ ফেব্রুয়ারি তার মুক্তি উপলক্ষ্যে তাই মিডিয়াও বেশ সরব। তাকে স্বাগত জানাতে আগামীকাল সকাল থেকেই মনে করা হচ্ছে বলিউডের তারকাসহ জেলখানায় মানুষের ঢল নামতে পারে। যদিও জেল থেকে বের হয়েই সোজা মায়ের কবরের কাছে যাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করেছেন অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত।

তিন বছর সাজা শেষে মুক্তি মিলছে তার। তার মুক্তিকে কেন্দ্র করে ভক্ত অনুরাগীদের ঢল নামতে পারে জেলখানার সামনে। আর তাই সঞ্জয়ের মুক্তির বিষয়টিতে গোপনীয়তা রাখতে চাইছে জেল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু সঞ্জয় নাকি আগে ভক্ত অনুরাগীদের সঙ্গে নয়, বরং মায়ের কাছে যাওয়ার পর সবার সঙ্গে দেখা করতে চাইছেন।

সঞ্জয়ের ঘনিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ২৫ ফেব্রূয়ারি সকাল ৯ থেকে ১০টার মধ্যে জেল থেকে ছাড়া পাবেন সঞ্জয়। এসময় জেলখানার বাইরে তার জন্য অপেক্ষা করবেন তার স্ত্রী মান্যতা, এবং তার দুই সন্তান ইকরা ও শরণ। এসময় নাকি মিডিয়া কিংবা তাকে স্বাগত জানাতে আসা উপস্থিত ভক্ত অনুরাগীদের সঙ্গেও দেখা করবেন না তিনি। বরং পুনে থেকে মুম্বাইয়ের ফ্লাইট ধরে সোজা চলে যাবেন মায়ের কবরের কাছে।

হ্যাঁ। জেল থেকেই বের হয়েই তিনি যাবেন সিদ্ধিবিনায়েক মন্দিরে। সেখানে গণেশ পূজা দেয়ার পর সোজা চলে যাবেন মা নার্গিসের কবরের কাছে। সেখানে কিছু সময় কাটিয়ে ফিরবেন মুম্বাইয়ের বাসায়।

মুম্বাইয়ের বাসায় মূলত তিনি সবার সঙ্গে দেখা করতে চান। মনে করা হচ্ছে এদিন তার সঙ্গে দেখা করতে তার বাসায় আসবেন সালমান খান, আমির খান, অজয় দেবগন, রাজকুমার হিরানি, রনবীর কাপুর, বিধু বিনোদ চোপড়াসহ বলিউডের তারকা অভিনেতা, অভিনেত্রী, নির্মাতা ও প্রযোজকরা।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৩ সালে মুম্বাইয়ে সংঘটিত ধারাবাহিক বোমা বিস্ফোরণে জড়িত লোকজনের কাছ থেকে অবৈধভাবে অস্ত্র রাখার অপরাধে সঞ্জয় দত্তকে দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। আদালতের রায়ে পাঁচ বছরের জন্য পুনের ইয়েরাওয়াড়া জেলে কারাবাস করার কথা ছিল সঞ্জয়ের। তবে, নির্ধারিত সময়ের আগেই সদারচরণের জন্য জেল থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাচ্ছেন সঞ্জয় দত্ত।






মন্তব্য চালু নেই