মেইন ম্যেনু

জোট অটুট আছে, থাকবে : ২০ দল

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট অটুট আছে এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি নির্বাচনের দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ঐক্যবদ্ধভাবেই গণতান্ত্রিক আন্দোলন চালিয়ে যাবে জোটটির নেতা-কর্মীরা।

জোটের শরিক নেতাদের সঙ্গে নেত্রী খালেদা জিয়ার বৈঠকের ১২ ঘন্টার মধ্যে বৃহস্পতিবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কথা বলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জোটের শীর্ষ নেতারা তার পাশে ছিলেন।

বুধবার রাতে দীর্ঘদিন পর জোটের শরিক দলগুলোর প্রধানদের নিয়ে বৈঠকে করেন বিএনপি চেয়ারপারসন। গত ২২ নভেম্বরের পর ওই বৈঠকটি চলতি বছরের প্রথম বৈঠক। প্রায় দুই ঘন্টার বেশি সময় স্থায়ী ওই বৈঠকে জোট অটুট রাখা, তার লন্ডন সফর, পুলিশের ভূমিকা, দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ একটি নিবার্চনের বিয়য়ে সরকারের ওপর চাপসৃষ্টির কর্মকৌশলের নানা প্রস্তাব, জোটের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা, কারাবন্দি নেতৃবৃন্দের মুক্তিসহ নানা বিষয়ে আলোচনা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে নজরুল ইসলাম খান বলেন, সরকারের সকল নির্যাতন উপেক্ষা করে ২০ দল অটুট আছে এবং থাকবে। ২০ দলের নেতারা যখন প্রয়োজন মনে করে তখন সভা আহবান করা হয়। তবে বিএনপি চেয়ারপারসন দীর্ঘদিন গুলশান অফিসে অবরুদ্ধ ও নেতা-কর্মীরা কারাগারে থাকায় ২০ দলের নিয়মিত বৈঠক হয়নি। বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটে ভাঙ্গন বা এই ধরনের কোনো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি বলেও জানান বিনেপির এই নেতা।

‘গণতন্ত্র পুন:রুদ্ধারে’ আন্দোলন চলছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের আন্দোলন করতে হয় অস্ত্রধারী সরকার বা অস্ত্রধারী লোকদের সঙ্গে। বিএনপি সন্ত্রাসী কার্যকলাপে বিশ্বাস কওে না। সেজন্য বারবার জনগণের কাছে আসি। আমাদের আন্দোলন সফলের দ্বারপ্রান্তে। জনগণের বিজয় সুনিশ্চিত।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, দেশের জনগণ নির্দলীয় সরকারের অবাধ, সুষ্ঠু ও সকলের অংশগ্রহণে নির্বাচনের দাবিতে ঐক্যবদ্ধ। কিন্ত সরকার সীমাহীন দমন-পীড়ন চালিয়ে জনগণের আকাক্সক্ষাকে ব্যর্থ করে দেওয়ার অপচেষ্টা করছে। ২০ দল শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। এই সংগ্রাম অব্যহত থাকবে।






মন্তব্য চালু নেই