মেইন ম্যেনু

জোর করে খুলে ফেলা হলো এক মুসলিম তরুণীর হিজাব

একজন মুসলামন নারীর জন্য পর্দা করা ফরয। কিন্তু সম্প্রতি স্কুল থেকে নিজের শিশুকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনার জন্য রাস্তায় বের হলে ওই মুসলিম তরুণীর উপর একদল বর্ণবাদী হামলা করে তার হিজাব খুলে নেয়। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে এমন ঘটনা ঘটেছে। খবর রাশা টুডে।

খবরে বলা হয়, একদল উগ্র তরুণী প্রথমে তার কাছে এসে জানতে চায় মাথায় হিজাব পরলে গরম লাগে কিনা। এরপর জবাবের অপেক্ষা না করেই তারা টান মেরে তার হিজাব খুলে ফেলে এবং তাকে কিল-ঘুষি ও লাথি মারতে থাকে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই মুসলিম নারী জানান, হামলাকারীরা তার কিছু চুল টিনে ছিঁড়ে ফেলে। গত বৃহস্পতিবারের এ হামলার সময় তারা তাকে গালিগালাজ করে বলেও জানান তিনি।

এ সম্পর্কে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের একজন মুখপাত্র বলেছেন, তারা যেকোনো হামলাকেই গুরুত্বের সঙ্গে নেন। ওই মুসলিম নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে এরইমধ্যে দু’জন সন্দেহভাজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। অবশ্য হামলাকারী দুই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ জামিনে মুক্তি দিয়েছে বলে জানিয়েছে রাশা টুডে।

যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের অন্যান্য দেশে বর্ণবাদী হামলার সবচেয়ে বড় শিকার মুসলমানরা। উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসআইএলের মানবতা বিরোধী অপরাধ বেড়ে যাওয়ার পর ইউরোপে মুসলিম বিরোধী হামলা জোরদার হয়েছে। এ ছাড়া, কথিত অবৈধ অভিবাসী ইস্যুকে কেন্দ্র করে ইউরোপের উগ্র ডানপন্থি রাজনৈতিক দলগুলোর অপপ্রচারের কারণেও মুসলমানরা হামলার শিকার হচ্ছেন।
সূত্র: রেডিও তেহরান






মন্তব্য চালু নেই