মেইন ম্যেনু

ঝাল ঝাল পাঞ্জাবি মাটন কারি রেসিপি

পুজার উৎসবে দারুণ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে লুচি এবং বিভিন্ন রকমের সবজি। কিন্তু এর মাঝে একটু আমিষ নাহলে কি চলে? রান্না করে নিতে পারেন মশলাদার পাঞ্জাবি মাটন কারি। সাথে রইলো স্পেশাল পাঞ্জাবি গরম মশলা তৈরির প্রণালীটিও।

উপকরণ
মাটন কারির জন্য
– মাটন ৬০০ গ্রাম
– পিঁয়াজ কুচি ৩০০ গ্রাম
– ১ টেবিল চামচ আদা কুচি
– ১ টেবিল চামচ রসুন কুচি
– টমেটো ৪০০ গ্রাম, সেদ্ধ করে পিউরি করে নেওয়া
– ১টি তেজপাতা
– ১টি কালো এলাচ
– ৩টি সাধারণ এলাচ
– ৪টি লবঙ্গ
– সিকি চা চামচ হলুদ গুঁড়ো
– ১ চা চামচ মরিচ গুঁড়ো
– ১ টেবিল চামচ কাসুরি মেথি
– ১ টেবিল চামচ জিরা গুঁড়ো
– পাঞ্জাবি গরম মশলা গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ
– গার্নিশের জন্য টাটকা ধনেপাতা কুচি
– ৪ টেবিল চামচ সর্ষের তেল

পাঞ্জাবি গরম মশলার জন্য
– ৪ টেবিল চামচ ধনে
– ৪ টেবিল চামচ জিরা
– ১টি বড় দারুচিনির টুকরো
– ১৫/২০টি লবঙ্গ
– ৪টি তেজপাতা
– ৪টি কালো এলাচ
– ৮/১০টি এলাচ
– ১ টেবিল চামচ আস্ত গোলমরিচ
– ১টেবিল চামচ আদা গুঁড়ো
– ১ চা চামচ জায়ফল গুঁড়ো

প্রণালী
১) প্রথমে গরম মশলা তৈরি করে নিন। মশলার প্রতিটি উপাদান আলাদা করে তাওয়ায় তেলে নিন এবং রুম টেম্পারেচারে ঠাণ্ডা করে নিন। এরপর সবগুলো একসাথে গ্রাইন্ড করে মিহি গুঁড়ো করে নিন। এয়ারটাইট কন্টেইনারে রাখতে পারেন এক মাস পর্যন্ত।
২) প্রেশার কুকারে তেল গরম করে নিন। এতে সাঁতলে নিন তেজপাতা, এলাচ এবং লবঙ্গ। এরপর এতে পিঁয়াজ দিয়ে সোনালি করে ভেজে নিন। এতে দিন আদা ও রসুন। কাঁচা গন্ধটা চলে যাওয়া পর্যন্ত ভেজে নিন। এবার এতে টমেটো পিউরি দিন। তেল ওপরে চলে না আসা পর্যন্ত কষিয়ে নিন।
৩) এতে হলুদ গুঁড়ো, মরিচ গুঁড়ো, পাঞ্জাবি গরম মশলা গুঁড়ো, জিরা গুঁড়ো এবং লবণ দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। আরও ৫-৬ মিনিট নেড়েচেড়ে কষিয়ে নিন। অল্প করে পানি ছিটিয়ে দিন যাতে মশলা ধরে না যায়।
৪) এতে মাটন দিয়ে দিন। মাটন পানি ছেড়ে দেবে। অতিরিক্ত পানি দেবেন না। মাংস কষিয়ে নিন যাতে এই পানি শুকিয়ে যায় এবং মাংসের রং বাদামি হয়ে আসে।
৫) এবার কাসুরি মেথি এবং ২ কাপ পানি দিন। প্রেশার কুকারের ঢাকনা বন্ধ করে দিন। প্রথম শিষ দেবার পর আঁচ কমিয়ে দিন। খুব কম আঁচে ২০ মিনিট রান্না করুন।
৬) আঁচ বন্ধ করে দিন এবং প্রেশার কুকারের ভেতরের প্রেশার কমে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর ঢাকনা খুলে নিন। মাটন যথেষ্ট সেদ্ধ হয়েছে কিনা দেখুন। ওপরে ১ চা চামচ গরম মশলা এবং ধনেপাতা কুচি দিন পরিবেশনের আগে।

পাঞ্জাবি মাটন কারি পরিবেশন করতে পারেন লুচি বা পরোটার সাথে। সাধারণ ভাত বা পোলাওয়ের সাথেও এর স্বাদ দারুণ লাগবে। পরিবেশনের সময় কাঁচা পেঁয়াজ এবং লেবুর টুকরো দিতে পারেন।

টিপস:
– পাঞ্জাবি গরম মশলা না থাকলে বা তৈরি করতে না চাইলে আপনি সাধারণ গরম মশলা গুঁড়ো ব্যবহার করতে পারেন।






মন্তব্য চালু নেই