মেইন ম্যেনু

ঝিনাইদহে সেবিকা হত্যার অভিযোগ লাশ নিয়ে স্বজনদের বিক্ষোভ

আব্দুল্লাহ আল মামুন, ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহ শহরের আদর্শপাড়া বকুলতলা এলাকায় তানজিলা আক্তার (২২) নামে গৃহবধূ এক নার্সকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত তানজিলা ঝিনাইদহ শহরের পাগলা কানাই এলাকার কোড়াপাড়ার আব্দুল গনি মেম্বরের মেয়ে। তিনি ঢাকার পপুলার ডাঢাগোনেষ্টিক সেন্টারে স্টাফ নার্স হিসেবে কর্মরত ছিলেন। মঙ্গলবার তাকে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ঢাকার মহাখালীতে সরকারী নার্স হিসেবে যোগদান করার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই সোমবার বিকালে স্বামী নাজমুল হাসান জুয়েল নির্যাতন করে তাকে হত্যা করেছে বলে তানজিলার পরিবার অভিযোগ করেছেন । এ ঘটনার পরে থেকে স্বামী জুয়েলসহ তার পরিবারের লোকজন পলাতক রয়েছে। এদিকে তানজিলা হত্যার প্রতিবাদ ও ঘাতক স্বামী জুয়েলের বিচারের দাবিতে মঙ্গলবার দুপুরে শহরের হামদহ থেকে প্রেরণা-৭১ পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করে এলাকাবাসী। তানজিলার মা বিথি বেগম কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, গত চার মাস আগে শহরের বকুলতলা এলাকার আব্দুল বাকী বিল্লার ছেলে নাজমুল হাসান জুয়েলের সাথে পারিবারিক ভাবে মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী জুয়েল বিভিন্ন দাবি দাওয়া নিয়ে প্রায়ই তানজিলাকে নির্যাতন করতো। নির্যাতরে খবর পেয়ে তানজিলার বাবা আব্দুল গণি সোমবার সকালে মেয়ে আনতে আদর্শপাড়ার শ্বশুর বাড়ির যান। কিন্তু তানজিলাকে দেওয়া হয়নি। বিকালে জানতে পারেন তানজিলা মারা গেছেন। তানজিলার বাবা আব্দুল গনি মেম্বর অভিযোগ করেন, আমার মেয়েকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমির এর বিচার চাই। তানজিলার বাবার বন্ধু ঝিনাইদহ জেলা বাস্তহারালীগের সভাপতি ওবাইদুর রহমান মাসুদ বলেন, মেয়েটি ছোট বেলা থেকে আমাদের চোখের সামনে মনুষ হয়েছে। খুব ভদ্রন¤্র স্বভাবের ছিল। তাকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, তানজিলার নানা হাবিবুর রহমান বীর মুক্তিযোদ্ধা। নানার কোটায় সে একটি সরকারী চাকরী পান। মঙ্গলবার সরকারী নার্স হিসেবে তার যোগদানের কথা ছিল। বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহ সহকারি পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) গোপিনাথ কানজিলাল সাংবাদিকদের জানান, প্রাথমিক ভাবে পুলিশ ধারনা করছে তানজিলা আত্মহত্যা করেছে। তবে তানজিলার পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যার অভিযোগ করায় বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে এবং ময়নাতদন্তের রির্পোট পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। তিনি আরো বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে তানজিলার পরিবারকে মামলা করা জন্য বলা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই