মেইন ম্যেনু

ঝুলে যাওয়া ত্বক টানটান করুন প্রাকৃতিক উপায়ে

সময় ও স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না। বয়সের লক্ষণের ক্ষেত্রেও এটা প্রযোজ্য। বয়স বাড়ার সাথে সাথে ত্বকের ইলাস্টিন ও কোলাজেনের গঠনে পরিবর্তন দেখা দেয় যার ফলে ত্বক স্থিতিস্থাপকতা হারায় এবং ত্বক নিজের ময়েশ্চারাইজিং উপাদান হারায়। তাই ত্বক ঝুলে পড়ে। এছাড়াও বয়স বৃদ্ধির জন্য চেহারার মাংসপেশি দুর্বল হয়ে পড়ে ফলে ত্বক ঝুলে যায়।

ত্বকের ইলাস্টিসিটি কমে যাওয়ার কারণ হল, সূর্যের আলোতে বেশীক্ষণ থাকা, অতিরিক্ত ধূমপান করা, নিয়মিত অ্যালকোহল পান করা, স্থূলতা, প্রেগনেন্সি, দ্রুত ওজন কমা, কম খাওয়া, ভুল স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট ব্যবহার করা, পানিশূন্যতা এবং ত্বকে প্রখর রাসায়নিক ব্যবহার করা ইত্যাদি।

ত্বক ঝুলে যাওয়ার সাথে সাথে বিশেষ করে চেহারায় বলিরেখা ও ফাইন লাইন দেখা দেয়। এছাড়াও ত্বক ম্লান এবং স্বচ্ছ দেখায় এবং ত্বক অনেক বেশি স্পর্শকাতর হয়ে পরে। ঝুলে পড়া ত্বকে টানটান করার জন্য ঘরোয়া কিছু উপায় আছে। আজ সেগুলোই জেনে নেই আসুন।

১। ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন ও হাইড্রেটেড থাকুন

প্রচুর পরিমাণে তরল খাবার আপনার শরীরকে আভ্যন্তরীণ ভাবে হাইড্রেটেড রাখবে এবং ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করলে ত্বক বাহ্যিক ভাবে নমনীয় থাকবে। শিয়া বাটার, আমন্ড তেল, ও অলিভ অয়েল হচ্ছে সবচেয়ে ভালো প্রাকৃতিক উপাদান যা ত্বককে কোমল রাখে।

২। মুখের ব্যায়াম করুন

সবচেয়ে খারাপ জায়গা হচ্ছে মুখের ও ঘাড়ের ত্বক ঝুলে পড়া। সৌভাগ্যক্রমে মুখের কিছু ব্যায়াম আছে যা নিয়মিত করলে মুখের ত্বক টানটান হয়। বিশেষ করে চিবুকের ত্বক ঝুলে পড়তে শুরু করে তাড়াতাড়ি। চিবুকের ত্বক টানটান করার জন্য মুখ ভর্তি করে বাতাস নিন, ৩০ সেকেন্ড অপেক্ষা করুন, তারপর ছেড়ে দিন। ৩০ গুণতে যে সময় লাগে সেই সময় পর্যন্ত দিনে দুইবার করে করুন। এইরকম আরো মুখের ব্যায়াম আছে যেমন- চিবুক উঠিয়ে সিলিং এর দিকে তাকিয়ে থাকুন, ৩০ সেকেন্ড পর নামিয়ে নিন। এভাবে চেহার এক্সারসাইজ করলে আস্তে আস্তে ত্বকের ভাঁজ গুলো দূর হবে।

৩। হেলদি ডায়েট

হেলদি ডায়েট ত্বক টানটান করতে সাহায্য করে। ত্বক টানটান করার সবচেয়ে সহজ উপায় হচ্ছে পুষ্টিকর খাবার খাওয়া। যদি আপনি প্রতিদিন ফল ও সবজি খান তাহলে আপনার ত্বক আর্দ্র ও সুস্থ থাকবে। উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাদ্য অ্যান্টিএজিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করে। ফ্রি রেডিকেল ড্যামেজ এর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যখন আপনার খাদ্য তালিকায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকেনা তখনই ত্বকের ঝুলে পড়ার সমস্যাটি দেখা দেয়। আপনার খাদ্য তালিকায় ভিটামিন এ সমৃদ্ধ খাবার যেমন- গাজর, বিট ইত্যাদি রাখুন। তাহলে ত্বকের ইলাস্টিসিটি পুনরায় ফিরে পাবেন। কোলাজেন বৃদ্ধির জন্য সয়া প্রোডাক্ট খান।

৪। ফেসিয়াল মাস্ক

ত্বক টানটান করার জন্য অন্যতম উপায় হচ্ছে ফেসিয়াল মাস্ক ব্যবহার করা। বিভিন্ন প্রকার মাস্ক আছে যেমন- ডিমের সাদা অংশ, লেবু, অ্যালোভেরা, মধু ও শশা ইত্তাদি।

· ডিমের সাদা অংশে অ্যাস্ট্রিজেন থাকে যা ঝুলে পড়া ত্বকের মেরামতের জন্য ভালো।
· ১টি বা ২টি ডিমের সাদা অংশ আলাদা করে নিয়ে ফেটাতে থাকুন যতক্ষণ না ফোমের মত হয়।
· এবার এটি মুখে ও ঘাড়ে ভালোভাবে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
· দৃঢ় ত্বকের জন্য সপ্তাহে ২ দিন এটি ব্যবহার করুন।

৫। অয়েল ম্যাসাজ করুন

মুখে ও ঘাড়ে প্রাকৃতিক তেল যেমন- অলিভ অয়েল ম্যাসাজ করলে ঝুলে পড়া ত্বক দৃঢ় হয়। অলিভ অয়েলে ভিটামিন এ ও ই থাকে যা অ্যান্টি এজিং হিসেবে কাজ করে।

· অলিভ অয়েল সামান্য গরম করে মুখে লাগান

· আঙ্গুল দিয়ে বৃত্তাকারে মুখে ম্যাসাজ করতে খাকুন ১০ মিনিট যাবত

· প্রতিদিন ঘুমানোর আগে এটা করুন।

· এছাড়াও নারিকেল তেল, জোজোবা বা আমন্ড তেল ও ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়াও বাহিরে যাওয়ার ২০ মিনিট আগে ভালো মানের সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন যার SPF 15 বা তার উপরে। ঘুম কম হলে ত্বকের উপর সরাসরি প্রভাব পড়ে যার ফলে বয়সের ছাপ দ্রুত পরে। তাই পর্যাপ্ত সময় ঘুমান প্রয়োজন। প্রচুর পানি পান করুন। ধূমপান বর্জন করুন। হঠাৎ করে ওজন না কমিয়ে এক্সারসাইজের মাধ্যমে ওজন কমান।






মন্তব্য চালু নেই