মেইন ম্যেনু

টাকার নেশায় অন্য পেশা বাদ দিয়ে এখন সবথেকে ধনী পর্ণ তারকা এরাই!

মাসে ১৫ বিলিয়নের বেশি আর্থিক লেনদেন এই সেক্টরে। ফলে, আয়ের নিরিখে যে পর্ণ তারকারা হলিউড কিংবা বলিউডের তাবড়-তাবড় তারকাদের যে হেলায় হারতে পারবে, সে একবারে বলাই যেতে। এমনকি, যে সমস্ত পর্ণ তারকাদের চাহিদা বিশ্বের টিনএজারদের কাছে সবথেকে বেশি, তাদের আয় শুনলে তো যে কারোরই মাথা খারাপ হতে পারে। অনেকে আবার মনে এই নেশাও চাপতে পারে যে নিজের পেশা ছেড়ে যোগ দেওয়া যেতে পারে পর্ণ ইন্ডাস্ট্রিতে। কিন্তু তা মোটেই সহজলভ্য নয়। যদিও ইতিমধ্যে অনেকেই নিজের পেশা ছেড়ে যোগ দিয়েছেন পর্ণের দুনিয়াতে। এক নজরে দেখে নিন আয়ের বিচারে প্রথম ১০ জন পর্ন তারকা।

১০) লেক্সিনটন স্টিলি: এক সময় একটি নামকরা ফার্মের স্টক ব্রোকার ছিলেন। ২০০১ সালে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে য়খন হামলা হয়, তখন তিনি সেখানেই ছিলেন। কপালের জোরে বেঁচে গিয়েছিলেন। তার বার্ষিক আয় ৬০ লাখ মার্কিন ডলার।

৯) কেটি মর্গ্যান: মেক্সিকো থেকে আমেরিকায় ড্রাগ পাচার করতে গিয়ে ধরা পড়ে গিয়েছিলেন তিনি। তারপর জেলে ছিলেন কিছুদিন। নিজের জামিন এবং মামলা লড়ার খরচ জোগাড় করতেই এই পেশায় আসেন কেটি। এখন অন্যতম ধনী তারকা তিনি। বছরে আয় ৬০ লাখ মার্কিন ডলারের কিছু বেশি।

৮) ব্রি ওলসন: ছোটবেলা থেকেই অভিনয়ের শখ ছিল। এক সময় মঞ্চে অভিনয়ও করেছেন। তার পর এই পেশায় চলে আসেন। বর্তমানে আয়ের বিচারে তিনি ৮ নম্বরে রয়েছে। বার্ষিক আয় ৭০ লাখ মার্কিন ডলার।

৭) রন জেরেমি: তিনি এক সময় শিক্ষকতা করতেন। পরে অভিনেতা হওয়ার আশায় নিউ ইয়র্কের রাস্তায় ভিক্ষা পর্যন্ত করতে হয়েছে তাঁকে। এখন তাঁকে বেস্ট মেল পর্ন স্টারের আখ্যা দেওয়া হয়। বার্ষিক আয় ৭৫ লাখ মার্কিন ডলার।

৬) মারিয়া তাকাগি: এই মুহূর্তে অন্যতম জনপ্রিয় পর্ন অভিনেত্রী। জাপান থেকে সোজা মার্কিন মুলুকে পাড়ি জমানোর পর আয়ের বিচারেও সকলকে টেক্কা দিচ্ছেন। বার্ষিক আয় প্রায় ৮০ লাখ মার্কিন ডলার।

৫) জেসি জেন: নিউ ইয়র্কে তিনি বেশ জনপ্রিয়। একটি আর্টিকেলে লেখা হয়েছিল, `তিনি দুইবার ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্ট অপারেশন করিয়েছেন। আসলে অপারেশন নয়, ইনভেস্টমেন্ট।` বার্ষিক আয় ৯০ লাখ মার্কিন ডলার।

৪) ট্রেসি লর্ডস: আসল নাম নোরা লুইসি কুজমা। মাত্র ১৫ বছর বয়সে এক জন ন্যুড মডেল হিসাবে কেরিয়ার শুরু করেন ট্রেসি। দীর্ঘ কেরিয়ার শেষ করেছেন। বার্ষিক আয় ১ কোটি মার্কিন ডলার।

৩) পিটার নর্থ: গিয়েছিলেন মডেল হতে, হয়ে গেলেন পর্ন তারকা। একটি ইন্টারভিউতে নিজের মুখেই এ কথা স্বীকার করেছেন নর্থ। একটি প্রাইভেট পার্টিতে মডেলিংয়ের কাজ করার সময় এক পরিচালকের নজরে পড়ে যান তিনি। তার পর প্রচুর পর্ন মুভিতে অভিনয় করেছেন এবং নিজেও পরিচালনার কাজ করেছেন। বার্ষিক আয় ১ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার।

২) টেরা প্যাট্রিক: ১৯৯৯ সালে পর্ন দুনিয়ায় নিজের কেরিয়ার শুরু করেন টেরা। ২০০৮ সালে অবসর নিলেও নিজের প্রোডাকশন হাউস চালান। বিশ্বজুড়ে নিজের অভিনীত ছবিগুলিকে লাইসেন্স করিয়েছেন। সেই থেকেই বিরাট আয় হয় তাঁর। এখন বছরে আয় করেন দেড় কোটি মার্কিন ডলার।

১) জেনা জেমসন্স: বয়ফ্রেন্ডের ওপর রাগ করে হঠাত্‍ করে ঠিক করেন পর্ন তারকা হবেন, ব্যস যেমন ভাবা তেমন কাজ। হয়েই গেলেন। এ মুহূর্তে রোজগারের বিচারে এক নম্বরে রয়েছেন জেনা। বার্ষিক আয় ৩ কোটি মার্কিন ডলার।






মন্তব্য চালু নেই