মেইন ম্যেনু

টাকা-পয়সার অজানা কথা

টাকা-পয়সা আমাদের লেনদেনের মাধ্যম। এগুলো ছাড়া ভাবা যায় না একটা দিন। যে কোন ধরণের বস্তুর মালিকানা পেতে গুণতে হয় টাকা। কারও অনেক টাকা, সমাজ তাকে বলে ধনী। কারও টাকা নেই বা কম, সমাজ তাকে বলে গরীব। এর মাঝেও আবার মধ্যবিত্ত, উচ্চবিত্ত, নিম্নবিত্ত নানান ভাগ। সবই ওই টাকার জোরে। জোর যার এত বেশী, আসুন জেনে নিই তার সম্পর্কে মজার কিছু তথ্য।

১। ১৪০০ বছর আগে চীনারা প্রথম কাগজের টাকার প্রচলন করে।

২। বব মার্লের জীবনের শেষ কথা ছিল, “টাকা দিয়ে জীবন কেনা যায় না”।

৩। ৯০ শতাংশ আমেরিকান ডলারে কোকেইন দেওয়া থাকে।

৪। প্রথম পেনিটি ছিল শতভাগ কপারের তৈরি। তবে বর্তমানে এর ৯৫ শতাংশই জিংক। কিন্তু এখনো ১ টি পেনি তৈরিতে ২.৪ সেন্ট খরচ হয়।

৫। গবেষণায় দেখা গেছে, স্বামী-স্ত্রীর তালাকের ক্ষেত্রে হাজার কারণের মধ্যে শীর্ষে আছে টাকা নিয়ে বিবাদ!

৬। আমেরিকান নগদ মূদ্রার ৬৬ শতাংশই অন্য দেশের সরকার জব্দ করে নেয়।

৭। প্রথম ক্রেডিট কার্ড যেটা কিনা বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা যাবে তৈরী করা হয়েছিল ফ্রাংক ম্যাক নামারা নামক এক ব্যাক্তির জন্য। কারণ বন্ধুদের সাথে ডিনারে যাওয়ার সময় তিনি তার ওয়ালেটটি নিতে ভুলে গিয়েছিলেন।

৮। আমেরিকান কাগজি মূদ্রা আসলে কাগজের না। কাপড়ের।

৯। প্রায় ৫০ শতাংশ আমেরিকানই ৪০০ ডলার খরচের সময় রিপোর্ট করে যে, ধার করা ছাড়া তারা বিল দিতে পারবে না।

১০। বিল গেটস যদি প্রতিদিন ১ মিলিয়ন ডলার খরচ করে তাহলেও ২১৮ বছর লাগবে তার সমস্ত টাকা খরচ করতে।

১১। ২য় বিশ্বযুদ্ধ পর্যন্ত সাইবেরিয়া এবং এশিয়ায় চা ব্রিক্স মূদ্রা হিসেবে ব্যবহৃত হত!

১২। আমেরিকানদের ৩৪ শতাংশ আয়কৃত অর্থ সুদ প্রদানেই ব্যয় হয়। এর মধ্যে আছে ক্রেডিট কার্ড, লোন ইত্যাদি।

১৩। ডলারের গায়ে যে কোন ফ্লু এর ভাইরাস ২ সপ্তাহ পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে।

১৪। আমেরিকানরা যদি ১ ডলারের বিলগুলো পয়সায় না দিয়ে ডলারে দেয় তাহলে সরকারের ৪.৫ বিলিয়ন ডলার সাশ্রয় হবে, ৩০ বছরে!

১৫। প্রতি বছর প্রকৃত মূদ্রার চেয়েও বেশী ছাপা হয় মনোপলি মূদ্রা।

১৬। সারা পৃথিবীতে যত আমেরিকান ব্যাংক নোট আছে তাদের মূল্য হিসেব করলে দেখা যায় ৭৫ ট্রিলিয়ন ডলার। যা বিশ্বের প্রতিটি মানুষের মাঝে বিলিয়ে দিলে জনপ্রতি সবাই পাবে ১১০০ ডলার।

১৭। আমেরিকান কারেন্সির সবচেয়ে বড় নকলকারী দেশ উত্তর কোরিয়া।

১৮। আপনার পকেটে যদি ১০ ডলার থাকে এবং আপনি যদি ঋণগ্রস্থ না হন তাহলে এক-তৃতীয়াংশ আমেরিকানদের তুলনায় আপনি ধনী।
দেশ বিদেশে টাকার নানান মান। কোনটা আমাদের টাকার চেয়ে দামী, কোনটা কম দামী। কিন্তু কাজ সবার একই। মজার ব্যাপার হল, বিনিময় প্রথার শুরুতে টাকা বলতে কিছুই ছিল না। আজ সমূদ্রের বালুকাবেলায় ছড়িয়ে থাকা শামুক কড়িই ছিল আদিযুদের টাকা!






মন্তব্য চালু নেই