মেইন ম্যেনু

টিআর-কাবিখার ৮০ শতাংশই চুরি হয় : ইনু

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, দরিদ্রদের জন্য কর্মসূচি টিআর ও কাবিখার বরাদ্দের ৮০ শতাংশই চুরি হয়। ৩০০ টন বরাদ্দ হলে ১৫০ টন যায় এমপিদের পকেটে। বাকি ১৫০ টনের সিংহভাগ যায় চেয়ারম্যান-মেম্বাদের পকেটে। আমরা চোখ বন্ধ করে এই দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দিয়ে যাচ্ছি।

রোববার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) ভবনে ‘গ্লোবাল সিটিজেনস ফোরাম অন সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট সামিট ২০১৬’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

হাসানুল হক ইনু বলেন, সব এমপিই হয়তো চুরি করেন না। কিন্তু বেশির ভাগ এমপিই এ কাজটি করেন। এজন্য উন্নয়ন বাজেটের অর্থ সরাসরি ইউনিয়ন পরিষদের বাজেটে দেয়া উচিত। এতে উন্নয়ন বৈষম্য কমে আসবে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, সুশাসন ও শান্তি না থাকলে প্রবৃদ্ধি করা কঠিন। পরিবেশের সঙ্গে সমন্বয় করে উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে। এই মুহূর্তে দেশের জন্য দুটি চ্যালেঞ্জ- টেকসই ও অংশগ্রহণমূলক গণতন্ত্র।

তিনি বলেন, জনগণের অংশগ্রহণমূলক গণতন্ত্র না থাকলে উন্নয়ন নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। দারিদ্র্য হয়তো দূর হবে কিন্তু বৈষম্য থেকেই যাবে। সরকার টেকসই উন্নয়ন, গণতন্ত্রের বিকাশ ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে গুরুত্ব দিচ্ছে।

এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ ও মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে মনোযোগ দেয়ার পরামর্শ দেন ইনু।

পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের সভাপতি ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মনজুরুল ইসলাম, জাতিসংঘের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ড. একে আব্দুল মোমেন প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই