মেইন ম্যেনু

টেকনাফ সড়কের উভয় পার্শ্বে সওজের জমি দখলে : বাড়ছে দূর্ঘটনা

ফয়েজুল ইসলাম রানা, টেকনাফ: ইদানিং টেকনাফ-কক্সাবাজার সড়কের উভয় পার্শ্বে শত শত একর সওজের জমি বেদখলে যাচ্ছে। দিন দিন বাড়ছে দূর্ঘটনা। সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কোন মাথা ব্যথা নেই বলে স্থানীয় লোকজন জানায়। টেকনাফ কক্সবাজার সড়কের জিরো পয়েন্ট টেকনাফ পৌরসভার শাপলা চত্বর হয়ে কক্সবাজার লিংক রোড় পর্যন্ত ৮৫কিলোমিটার সড়ক পরিদর্শনে দেখা যায়, সড়কের উভয় পার্শ্বে শত শত অবৈধ স্থাপনা তৈরী হচ্ছে। সরু হয়ে যাচ্ছে মূল সড়ক। সড়ক ও জন পথ বিভাগের ম্যানুয়েলে জানা যায়, আঞ্চলিক মহা সমূহের সড়কের উভয় পার্শ্বে সড়ক ব্যতিত ৭০ ফিট খালি জায়গা রয়েছে। এর উদ্দেশ্যে হচ্ছে, ভবিষ্যতে জনসংখ্যা দ্রুত গতিতে বাড়বে সে অনুপাতে সড়ক প্রশস্থ করতে হবে। যে জমির মালিকানা সড়ক ও জনপথ বিভাগের। শুধু জমির মালিকানা কেন এর দেখা শুনা তদারকি ইত্যাদি বিষয়ও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের। এ সমস্ত খালি জায়গায় কোন মতেই কেহ স্থায়ী অস্থায়ী স্থাপনা তৈরী করতে পারবেনা। যদি কেহ পেশী শক্তি বলে কোন স্থাপনা তৈরী করে তা সংশ্লিষ্ট দপ্তর ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ভেঙ্গে দেবে এবং আইন অমান্যকারী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। কিন্তু টেকনাফ কক্সবাজার সড়কের উভয় পার্শ্বে দিন দিন অবৈধ স্থাপনা তৈরী হচ্ছে। এমন কি সড়কের উপর দৈনন্দিন বাজার বসিয়ে সড়কে যানজট সৃষ্টি করা হচ্ছে বলে স্থানীয়রা জানায়। প্রতিদিন সড়কের উভয় পার্শ্বে অবৈধ স্থাপনা তৈরীর কারনে বাড়ছে দূর্ঘটনা ও তীব্র যানজট। চলে যাচ্ছে তরতাজা প্রাণ। পরিদর্শনে দেখা যায়, টেকনাফ পৌর এলাকার সওজের সড়কের উপর বাশঁ, গাছ, ইট, বালি, পান, সুপারী , কাচাঁ বাজার, নার্সারী, স্যানিটেশন কারখানা, এ্যাসক্রাপের দোকান সহ বিভিন্ন দোকান পাট গড়ে উঠেছে এবং প্রতিদিন নিত্য নতুন মার্কেট তৈরী হচ্ছে। ইদানিং টেকনাফ পৌর এলাকার নাইট্যং পাড়ায় গাড়ি পরিষ্কারের নামে দুটি গাড়ি ধোত কারখানা গড়ে উঠেছে। মূল রাস্তার উপর বসিয়ে প্রতিদিন শত শত গাড়ী পানি দিয়ে পরিস্কার করছে। ফলে মূল সড়ক ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যাচ্ছে। কোন অদূশ্য শক্তির বলে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমির উপর গাড়ি ধৌত কারখানা তৈরী করেছে এলাকাবাসীর প্রশ্ন। এ ছাড়া টেকনাফ পৌর এলাকা ব্যতিত টেকনাফ কক্সবাজার সড়কের প্রতিটি ষ্টেশনে শত শত একর জমি বেহাত হচ্ছে। এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কক্সবাজার প্রকৌশলীর সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে সংযোগ না পাওয়ায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।






মন্তব্য চালু নেই