মেইন ম্যেনু

টেলিভিশনের সামনে মোনাজাত ধরা যাবে কি?

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যেই তুরাগতীরে মোনাজাতে অংশ নিয়েছে লাখো মানুষ। তবে অনেকে রেডিও টেলিভিশনের সামনে বসে মোনাজাত করার নিয়ত করেছেন। এ বিষয়ে ইসলামের বিধান কি?

এ বিষয়ে ফেকাহ গবেষক মুফতি আবু সাঈদ যোবায়ের তিনি বলেন, রেডিও টেলিভিশনের সামনে বসে মোনাজাত ধরায় কোন বাধা নেই। আল্লাহর ভূমিতে যে কোন জায়গায় বসেই প্রার্থনা করা যায়। তবে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে মোনাজাত করলে রহমত বরকতের যে আশা রয়েছে সে তুলনায় হয়তো কম পাওয়া যাবে।

লাখো মানুষের ‘আমিন আমিন’ ধ্বনিতে মুখরিত হয়েছে টঙ্গীর তুরাগ তীর। মাইক থেকে ভেসে আসছে ‘হে আল্লাহ হামকো কবুল ফরমা’। সঙ্গে সঙ্গেই লক্ষ কণ্ঠে ধ্বনিত হবে আ-মি-ন আ-মি-ন। একসঙ্গে লাখো আমিনের ধ্বনি পৌঁছে যাচ্ছে আরশে আযীমে। আল্লাহর দরবারে নিজেকে কবুলের আবেদন, কবুলের প্রার্থনা।

হাদিসে আছে হযরত হাবীব ইবনে মাসলামা আল ফিহরী রা. বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি যে, কিছু মানুষ যখন কোথাও একত্রিত হয়ে এভাবে দোয়া করে যে, একজন দোয়া করে এবং অন্যরা আমিন বলে সেক্ষেত্রে আল্লাহ তা’আলা অবশ্যই তাদের দোয়া কবুল করেন। (মুজামে কাবীর, মুস্তাদরাকে হাকিম।)

এ হাদিস দ্বারা বোঝা যায় স্বশরীরে একত্রিত হয়ে মোনাজাত ও রেডিও টেলিভিশনের সামনে মোনাজাতের মাঝে পার্থক্য রয়েছে। স্বশরীরে একত্রিত হওয়া আর টেলিভিশনের সামনে বসে মোনাজাত ধরা এক নয়। তবে বাধা-নিষেধও নেই। হতে পারে বান্দার মনের দিকে তাকিয়ে আল্লাহ যে কারও দোয়াই কবুল করে নিতে পারেন।






মন্তব্য চালু নেই