মেইন ম্যেনু

ট্যাম্পাকোর অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৮ জনের নাম প্রকাশ

ট্যাম্পাকো কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে নিহতের মধ্যে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয় ১৯ জন। এর মধ্যে ১৮ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। অপরজন অজ্ঞাত।

টঙ্গী ৫০ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পারভেজ হোসেন জানান, ওই কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় হাসপাতালে ১৯টি মৃতদেহ আনা হয়। এর মধ্যে ১৮ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে।

এরা হলেন- টাঙ্গাইলের গোপালপুর থানার ভেংগুলা গ্রামের কৃষ্ণ প্রসাদের ছেলে সুভাষ চন্দ্র প্রসাদ, ভোলার দৌলতখান গ্রামের জবুল হকের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম, ময়মনসিংহের ত্রিশাল থানার কাকচুর গ্রামের আরশাদ আলীর ছেলে রফিক, একই জেলার ঈশ্বরগঞ্জ থানার শরিষা গ্রামের আজিম উদ্দিনের ছেলে আব্দুর রাশেদ (২৫), চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর থানার রুহিতারপাড় গ্রামের মৃত খালেক মাস্টারের ছেলে আব্দুল হান্নান, কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী থানার মানিককাজী গ্রামের নিজাম উদ্দিনের ছেলে ইদ্রিস আলী (৪০), ঢাকার নবাবগঞ্জ থানার বড়বাহা গ্রামের মৃত নবদীপ দাসের ছেলে গোপাল দাস (২৫), একই থানার চরমানপুর গ্রামের নিতাই সরকারে ছেলে শংকর সরকার, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া থানার পশ্চিম ফুলজুড়ি গ্রামের মৃত ইনজাম উদ্দিন আজাদের ছেলে আল মামুন (৪০), সিলেটের গোলাপগঞ্জ থানার সুন্দিসাই গ্রামের সোনা মিয়ার ছেলে এনামুল হক (৩৮), কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর থানার আস্তাফলা গ্রামে করিম বক্সের ছেলে সোলায়মান (৩৫), টাঙ্গাইল সদরের মধুপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে আনিছুর রহমান (৫০), একই এলাকার মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে ওয়ালি হোসেন (৩৫), ভোলা দৌলতখান থানার লেজপাড়া গ্রামের মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মাইন উদ্দিন (৩৫), সিলেটের গোলাপগঞ্জের সুন্দিসাড়ি গ্রামের তানজিদ আলীর ছেলে সাইদুর রহমান (৫০), টাঙ্গাইল সদরের মধুপুর গ্রামের মৃত মচর আলীর ছেলে হাসান সিদ্দিকী (৫০), চট্টগ্রামের সন্দীপ এলাকার মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে মামুন এবং হবিগঞ্জের চুনারঘাট থানার পমদশপ্যানপুর গ্রামের হাবিবুর রহমানের মেয়ে রেজিনা। অপরজন অজ্ঞাত।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই