মেইন ম্যেনু

ট্রাম্পের জামাই হচ্ছেন হোয়াইট হাউসের শীর্ষ উপদেষ্টা

হোয়াইট হাউসের অন্যতম শীর্ষ উপদেষ্টা হিসেবে নিজের জামাইয়ের নাম ঘোষণা করেছেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্পের মেয়ে ইভানকা ট্রাম্পের স্বামী জ্যারেড কুশনার (৩৫) উপদেষ্টা হিসেবে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন বলে আশা করা হচ্ছে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচার চলার সময়ে ব্যাপক কর্মতৎপরতা দেখিয়েছিলেন কুশনার।

রিয়েল স্টেট ব্যবসায়ী ইভানকার স্বামী কুশনারের বাণিজ্যের প্রতি প্রবল আগ্রহ রয়েছে। উপদেষ্টা হিসেবে তার নাম ঘোষণার পরপরই ডেমোক্র্যাটিক পার্টি থেকে আপত্তি তোলা হয়েছে। স্বজনপ্রীতি ও নীতির সঙ্গে আপোশের অভিযোগ এনেছে বিরোধীশিবির। ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য আহ্বান জানিয়েছে তারা।

হাউস জুডিশিয়ারি কমিটির সদস্যরা এর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে বিচার বিভাগ ও সরকারের নৈতিক দপ্তরের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

এর আগে ট্রাম্প তার জামাই কুশনারকে ‘অসাধারণ সম্পদ’ হিসেবে উল্লেখ করেন এবং বলেন, তাকে প্রশাসনের কোনো গুরুত্বপূর্ণ পদে বসাতে পারলে গর্বিত হবেন তিনি। শেষ পর্যন্ত জামাইকে হোয়াইট হাউসের উপদেষ্টার পদে বসাচ্ছেন ট্রাম্প।

২০ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। একই দিন বিদায় নেবেন ৪৪তম প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

আত্মীয়দের সরকারি পদে না বসানোর আইন রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। কিন্তু ট্রাম্পের ট্রানজিশন টিম যুক্তি দেখাচ্ছে, এই আইন হোয়াইট হাউসের নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়।

এদিকে, কেন্দ্রীয় সরকারে নিয়োগের ক্ষেত্রে আইন রয়েছে, সরকারি পদে অধিষ্ঠিত কোনো ব্যক্তি ব্যবসায়ী মুনাফা গ্রহণ করতে পারবেন না। ট্রাম্পের জামাইয়ের নিয়োগ দুই আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

কুশনারের আইনজীবী জানিয়েছেন, হোয়াইট হাউসের উপদেষ্টার পদ গ্রহণ করলে পারিবারিক ব্যবসা থেকে সরে দাঁড়াবেন এবং কিছু সম্পত্তিও ছেড়ে দেবেন তিনি।

নির্বাচনী প্রচারের সময় ট্রাম্পের পাশে পাশে দেখা যায় কুশনারকে। ডিজিটাল প্রচার-প্রচারণায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই