মেইন ম্যেনু

টয়লেট মিউজিয়াম দেখতে হাজার মানুষের ভিড়!

জাপানে চালু হয়েছে টয়লেট মিউজিয়াম। একেবারে আদি কালের বাথরুম থেকে হালের সব রকমের বাথরুম আছে এই মিউজিয়ামে। চালু হওয়ার পর গত তিন মাসে দেশ, বিদেশ থেকে কম করে তিরিশ হাজার মানুষ এসে ঘুরে গেছেন এই টয়লেট মিউজিয়াম।

কিন্তু এটি কি সত্যিই টয়লেট মিউজিয়াম নাকি কোনও বিলাসবহুল শোওয়ার ঘর? যাতে গা গরম করে নেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। রয়েছে যন্ত্রের মাধ্যমে গরম জলে ম্যাসাজ করানোর ব্যবস্থা। রয়েছে এয়ার কন্ডিশনার। জলের তাপমাত্রা ও চাপ বাড়ানো-কমানোর ব্যবস্থা।

রয়েছে এয়ার ড্রায়ার। রয়েছে সুবাস ছড়ানোর জন্য ‘পাওয়ার ডিওডোরাইজার’। সঙ্গে রয়েছে সুন্দর, সুরেলা মিউজিক ‘ওতোহিমে’ শোনার ব্যবস্থাও।

এমনকী, অটোম্যাটিক সেন্সরও। বাথরুমে ঢুকলেই আপনাআপনি খুলে যাবে ঢাকনা। ভরে যাবে ব্যাকটেরিয়া বিনাশী জলের ফোয়ারায়। জ্বলে উঠবে ঝকঝকে আলো। এটাই সর্বাধুনিক জাপানি প্রযুক্তির টয়লেট। যার নাম- টোটো। যারা এই সর্বাধুনিক টয়লেট বানিয়েছে, সেই সংস্থা ‘টোটো’ এরইমধ্যেই এমন চার কোটি টয়লেট বানিয়ে বিভিন্ন দেশে পাঠিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই