মেইন ম্যেনু

ডায়াবেটিস হওয়ার আগের লক্ষণ গুলো জেনে নিন

ডায়াবেটিসকে অনেক সময় বলা হয় ‘নীরব ঘাতক’। তাই এ রোগের লক্ষণ বুঝে ওঠা খুবই জরুরী। ডায়াবেটিস রোগীদের রক্তে উচ্চমাত্রার গ্লুকোজ বিষের মতো কাজ করে। এতে সঙ্গী হয় উচ্চরক্তচাপ ও অস্বাবাকিক লিপিড। এই তিনে মিলে এক মারাত্মক ক্ষতিকর দল গঠন করে।

শক্তির জন্যে আপনার দেহে অতি জরুরি গ্লুকোজ। দেহের সুষ্ঠু কাজের জন্যে গ্লুকোজের প্রয়োজন রয়েছে। প্রতিদিনের খাবার থেকেই গ্লুকোজ মেলে। রক্ত প্রবাহের সঙ্গে মিশে গ্লুকোজ গোটা দেহে ভ্রমণ করে।

এই গ্লুকোজকে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে দেহের প্রয়োজন ইনসুলিন। কোষে গ্লুকোজ প্রবেশের জন্যে ইনসুলিন চাবির মতো কাজ করে। টাইপ ১ ডায়াবেটিস যাদের রয়েছে, তাদের দেহে গ্লুকোজ ব্যবহারের জন্যে ইনসুলিন উৎপন্ন হয় না।

তাই তাদের নিয়মিত ইনসুলিন গ্রহণ করতে হয়। আবার টাইপ ২ ডায়াবেটিস রোগীদের দেহ যথেষ্ট ইনসুলিন উৎপন্ন হলেও তা কাজে লাগে না। উভয় ধরনের ডায়াবেটিসের কিছু লক্ষণ রয়েছে। যাদের বংশে ডায়াবেটিস আছে, তারা নিজেদের মধ্যে এসব লক্ষণ রয়েছে কিনা তা দেখতে পারেন।

লক্ষণসমূহ :

অনেকের দেহে কোনো লক্ষণ ছাড়াই ডায়াবেটিস দেখা দিতে পারে। এক তৃতীয়াংশ মানুষ বুঝতে পারেন না যে তার ডায়াবেটিস রয়েছে। এদের অধিকাংশ টাইপ ২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। এদের স্পষ্ট লক্ষণগুলো দেখে নিন।

১। বেশি তৃষ্ণা পায় এবং মুখের ভেতর ও গলা শুকিয়ে যায়।
২। ঘন ঘন প্রস্রাব হয় এবং প্রচুর পরিমাণে হয়।
৩। ক্ষুধা পায় বেশি বেশি।
৪। অনাকাঙ্ক্ষিত ওজন হারায় দেহ।
৫। কারণ ছাড়াই অবসাদ ভর করে।
৬। কেটে গেলে ক্ষত সহজে শুকাতে চায় না।
৭। চোখের দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে আসে।
এগুলো সাধারণ লক্ষণ। সবাই হয়তো জানেন। কিন্তু এগুলোই ডায়াবেটিসের সবচেয়ে স্পষ্ট লক্ষণ। এসব বিষয় নিজের মধ্যে দেখলেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।






মন্তব্য চালু নেই