মেইন ম্যেনু

ডিভি লটারি-২০১৯ এ বাংলাদেশিরা আছে কি?

যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশের মানুষের জন্য অনেক প্রত্যাশার। অনেকের জন্য এটা স্বপ্নের মত। আর এটা পেতে হলে ভাগ্য পরীক্ষা দিতে হয়। এই পরীক্ষাকে বলা হয় যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসনের জন্য বিশেষ কর্মসূচি ডিভি (ডাইভারসিটি ইমিগ্র্যান্ট ভিসা প্রোগ্রাম)। এ লটারি কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে ২০১৯ সালে। আর এ লটারিতে এবারও বাংলাদেশিরা অংশ নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছে কি না এটা নিয়ে সকলের প্রশ্ন।

এই প্রশ্নের জবাব দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের ডিভি লটারি কর্তৃপক্ষের ওয়েবসাইটে। তারদের জবাবে এবারও কোন আশার বাণি নেই। তাদের ভাষ্য, বাংলাদেশসহ ১৮টি দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ইতমধ্যেই উচ্চহারে অভিবাসন নিয়েছে। যার কারণে এসব দেশের নাগরিকরা এবারও লটারির জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

ডিভি লটারি ২০১৯-এর আওতায় চলতি বছর লটারির মাধ্যমে মোট ৫৫ হাজার বিদেশি যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন কার্ড পাবেন। লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত অভিবাসীরা ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করার অনুমতি পাবেন।

যেসব দেশের নাগরিকরা ডিভি লটারির জন্য আবেদন করতে পারবেন না সেগুলোর মধ্যে ভারত, পাকিস্তান, যুক্তরাজ্য (উত্তর আয়ারল্যান্ড ছাড়া) ও কানাডা রয়েছে।

ডিভি লটারীতে সুযোগ পাবেনা যেসব দেশ- বাংলাদেশ, ব্রাজিল, চীন, কলম্বিয়া, ডমিনিকান রিপাবলিক, এল সালভাদর, হাইতি, জ্যামাইকা, মেক্সিকো, পেরু, ফিলিপিনস, ভিয়েতনাম, দক্ষিণ কোরিয়া ও নাইজেরিয়া।

তবে চীনের মূল ভূখণ্ডের বাইরে হংকং, ম্যাকাও ও তাইওয়ানে জন্মগ্রহণকারীরাও যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

পাঁচ বছরে অভিবাসনের কোটা পূরণ হয়ে যাওয়ার কথা বলে বাংলাদেশ ছাড়াও আরও ১৮টি দেশের জন্য ২০১৩ সালের ডিভি লটারিতে অংশ নেওয়ার সুযোগ বন্ধ ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। এর পর থেকে বাংলাদেশের নাগরিকদের ডিভি লটারির সুযোগ বন্ধই রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই